ঈদগাহে গিয়ে শুভেচ্ছা জানালেন মমতা

নিউজ ডেস্ক:  পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে রেড রোডে ঈদুল ফিতরের নামাজে প্রতি বছরই যান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ বছরও তার ব্যতিক্রম হয়নি। তবে এবার তার ভাষণ ছিলো কিছুটা ব্যতিক্রম। ঈদের ভাষণেও বিজেপির বিরুদ্ধে বার্তা দিয়েছেন মমতা। তিনি বলেন, ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

রেড রোডে ঈদের নামাজের মঞ্চ থেকেই বুধবার একথাই বার বার বলেন মুখ্যমন্ত্রী। কোনও রাজনৈতিক দলের নাম করলেন না। কিন্তু বললেন, যত দ্রুত ইলেকট্রনিক্স ভোটিং মেশিন (ইভিএম) দখল করেছে, তত দ্রুত চলেও যাবে।

অন্যান্য বছর শুধু সামাজিক বিষয় নিয়েই কথা বলেন মমতা। সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা জানান। কিন্তু এ বছর তার সংক্ষিপ্ত ভাষণে রাজনীতির ছায়া ছিল গাঢ়।

এদিন ভাষণে তিনি বলেন, আপনাদের পরিবার, আপনাদের ভবিষ্যৎ, আপনাদের সমাজ, আপনাদের সংস্কার, আপনার রাজ্য, আপনার দেশ, সারাবিশ্বে ইনশাল্লাহ আপনাদের জন্য ঈদ খুশির হয়ে উঠুক।

ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাশে নিয়ে এ দিন রেড রোডের অনুষ্ঠানে নাতিদীর্ঘ ভাষণে অনেক বারই ভয় না পাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। কারা ভয় পাবেন, কাকে ভয় পাবেন, কেনই বা পাবেন-সে সব প্রসঙ্গে ভেঙে কিছু মমতা বলেননি। তার জেরেই গুঞ্জন আরও বেড়েছে নানা শিবিরে।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, এই ঈদ আপনাদের জীবনে নতুন সকাল আনবে। কেউ রুখতে পারবে না। কেউ যদি বাধা দেন, তা হলে তার জন্য দুঃখিত।

তিনি আরও বলেন, আপনারা একটা কথা অবশ্যই বুঝবেন, আপনারা বাংলার বিষয়ে যে সাহায্য করেছেন, যে আশীর্বাদ-শুভেচ্ছা দিয়েছেন, তার জন্য বাংলার পরিবারের পক্ষ থেকে আমি কৃতজ্ঞ। আমি আপনাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথায়, একসঙ্গে থাকার জন্য, একতার জন্য, ধর্মনিরপেক্ষতার জন্য, দেশের পরম্পরার জন্য, আমাদের রাজ্যের পরম্পরার জন্য… আপনারা সব সময় সাহায্য করেন।

এরপর মমতা বলেন, যদি আপনারা সবাই সঙ্গে থকেন, তা হলে দেখবেন আমরা কীভাবে লড়ি। আমরা লড়ব। ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। যে ভয় পায়, সে মরে। যে লড়ে, সেই সফল হয়।

শুরুর দিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাষণে সামাজিক শুভেচ্ছা বার্তার আড়ালে ছিল রাজনৈতিক বার্তাটা। শেষদিকে সেই আড়ালটাও সরিয়ে দেন মমতা নিজেই। কোনও দল বা ব্যক্তির নাম উল্লেখ করেননি তিনি। কিন্তু বলেন, সূর্যের তেজ কখনও কখনও খুব বেড়ে যায়। কিন্তু পরে কমেও যায়… টাইম বিইং, টাইম বিইং… যত দ্রুত ইভিএম ক্যাপচার করেছিল, তত দ্রুত চলেও যাবে। ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই।

ভোটের ফল প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বার বার বলছেন, ইভিএমে কারচুপি হয়েছে। তাই ইভিএম দখলের কথা উল্লেখ করে এদিন যে তিনি বিজেপির দিকেই ইঙ্গিত করতে চেয়েছেন, তা বুঝতে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের অসুবিধা হয়নি। বিজেপির নাম না করলেও, ঈদের জমায়েতে গিয়ে যে তিনি বিজেপিকে ভয় না পাওয়ার বার্তাই দিতে চেয়েছেন, তাও অনেকের কাছেই পরিষ্কার হয়ে গেছে।