‘জয় শ্রীরাম’ বিতর্কে উত্তপ্ত পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য

নিউজ ডেস্ক :  ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগানকে ঘিরে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য-রাজনীতিতে শুরু হয়েছে তুমুল বিতর্ক। এই স্লোগানকে কেন্দ্র ক্রমশ উত্তপ্ত হচ্ছে রাজ্যের আবহাওয়া। হিন্দু ধর্মীয় এই স্লোগানটিকে তাকে ‘গালি গালাজ’ করতে ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

অন্যদিকে রাজ্যে লোকসভায় ভালো ফল করে উজ্জিবিত গেরুয়া শিবির এখন যেখানে মমতা যাচ্ছেন সেখানেই স্লোগানটি ব্যবহার করে তাকে উত্যক্ত করার চেষ্টা করছে।

সম্প্রতি নৈহাটি, কাঁচরাপাড়া এলাকায় মুখ্যমন্ত্রী মমতার কনভয়কে লক্ষ্য করে বিজেপি সমর্থকরা এই স্লোগানটি দিয়েছেন। জয় শ্রীরাম স্লোগান শুনেই উত্তেজিত মমতা নিজের গাড়ি থেকে নেমে তেড়ে যান বিজেপি সমর্থকদের দিকে। তার তেড়ে যাওয়া দেখে স্লোগান দেওয়া বন্ধ করলেও ফের তিনি গাড়িতে উঠে গেলেই আবার শুরু হয়ে যায়। আবার তিনি গাড়ি থেকে নেমে তেড়ে যান। লোকসভা ভোটের সময়ও একই ঘটনা ঘটে রাজ্যের অন্য একটি প্রান্তে। এই ঘটনায় কনভয়ে বাধা সৃষ্টির অভিযোগে ১০ জন গ্রেফতারও হন। কিন্তু ধারা নরম হওয়াতে তারা ছাড়াও পেয়ে যান। তৃণমূল ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মনে করছেন ধর্মের নাম করে দাঙ্গা বাঁধাতে এটা বিজেপির একটা পরিকল্পনা ।

অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রীর এই আচরণে ক্ষুব্ধ বিজেপির রাজ্য সভাপতি ও সদ্য লোকসভার সদস্য হওয়া দীলিপ ঘোষ। তিনি বলেন, ইংরেজ আমলে বন্দেমাতরম স্লোগান দিলে পুলিশ ধরত। এখন সেই অবস্থা ফিরে এসেছে। একটি স্লোগানে ক্ষেপে গিয়ে তেড়ে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী, প্রকাশ্যে গালি-গালাজ করছেন। তার মাথা খারাপ হয়ে গেছে।

কংগ্রেসের নেতা অর্ঘ্য গনের অভিযোগ, এভাবে উত্তেজনা সৃষ্টি করে মুখ্যমন্ত্রী আখেরে বিজেপির মতো হিন্দুত্ববাদী শক্তির হাত শক্ত করছেন। আমি মনে করি ভোটের ফলের পর উনি মানসিক চাপে আছেন। তাই এরকম আচরণ করছেন।

রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অচিন্ত্য বিশ্বাস বলেন, তার এই আচরণে বিজেপির মনোবল যেমন বৃদ্ধি হচ্ছে, তেমনই একটা ভয়ের পরিবেশ সৃষ্টি হচ্ছে। এগুলো তার এড়িয়ে যাওয়াই উচিত। তাঁর আচরণ দেখে মনে হচ্ছে তিনি মুখ্যমন্ত্রী থেকে ফের বিরোধি নেত্রীর ভূমিকায় চলে যাচ্ছেন। এতে তৃণমূলের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে।

সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তীর অভিযোগ, বিজেপিতো ওনাকে উত্তেজিত করার চেষ্টা করছে, উনিও পালটা স্লেজিং করছেন। গাড়ি থেকে লাফিয়ে নেমে পড়ছেন। কোনও মুখ্যমন্ত্রী এ ধরণের আচরণ অতীতে করেছেন কিনা আমার জানা নেই। বিজেপিকে ঘরে বসে উনি মাইলেজ দিচ্ছেন। ওনার মাথা আগে থেকেই খারাপ ছিল, এখন আরও খারাপ হয়ে গেছে।

এছাড়াও বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও আলোচনা-সমালোচনার ঝড় উঠেছে।