পাঁচ মাসে ২৩৩ শিশু ধর্ষণের শিকার

সুমন দত্ত: সম্প্রতি আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে গেছে শিশু ধর্ষণ ও যৌন হয়রানি ঘটনা। গত ৫ মাসে সারাদেশে ২৩৩টি শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এসব ঘটনার মধ্যে ৬ জন ছেলে শিশু বলাৎকারের শিকার। ধর্ষণের শিকার হয়ে মারা গেছে ১২ শিশু। এছাড়া ৩৩ জন শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বন্ধ হোক শিশু ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন নারীদের সংগঠন মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন ও এর সহযোগী সংস্থার বক্তারা।

তারা বলেন, আজ দেশের মাদ্রাসাগুলোতে কি হচ্ছে তা দেখার কেউ নেই। সেখানে ঠিকমত নজরদারি করা হচ্ছে না। যার ফলে সেখান থেকে একের পর এক শিশু নির্যাতনের ঘটনা প্রকাশ পাচ্ছে। এছাড়া বাসা বাড়িতেও শিশু নির্যাতন চলে। শিশুরা আজ কোনো জায়গায় নিরাপদ নয়। শিশুরা ধর্ষণের শিকার হচ্ছে নিজ বাড়িতে, প্রতিবেশীর বাড়িতে, বাড়ির পাশের বাগানে, ধান ক্ষেতে, স্কুলে যাওয়ার পথে, যে বাড়িতে কাজ করছে সে বাড়িতে। এমনকি প্রতিবন্ধী শিশুরাও শিকার হচ্ছে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির।

বক্তারা আরও বলেন, আমরা এ নিয়ে প্রতিটি পাড়ায়, ওয়ার্ডে কাউন্সিলর, পুলিশদের নিয়ে বসে এসব সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করবো। আমাদের পরামর্শ বাবা মায়েরা এ বিষয়ে সজাগ হবেন। তাদের সন্তান কার সঙ্গে যাচ্ছে, কোথায় যাচ্ছে? কি করছে? সে বিষয়ে খবর রাখবেন।

কখনও শিশুদের একা ছাড়বেন না। কিংবা কারো ভরসায় ছেড়ে দিবেন না। কারণ যেকোনো সময় আপনার ছেলে ও মেয়েকে ভুল পথে পরিচালিত করতে পারে দুর্বৃত্তরা। এরা আপনার শিশুকে খারাপ কিছু শিখিয়ে দিতে পারে।

বক্তারা এসব অপরাধমূলক ঘটনার বিচার দ্রুত করার জন্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহবান জানান।

ঢাকানিউজডটকম