অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটে পাটকল শ্রমিকরা

নিউজ ডেস্ক:    মজুরি কমিশন ও বকেয়া বেতন-ভাতাসহ বিভিন্ন দাবিতে পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে সোমবার থেকে দেশজুড়ে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করছে রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলের শ্রমিকরা।

খুলনা-যশোর অঞ্চলের পাটকল শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক মো. মুরাদ হোসেন বলেন, শ্রমিকরা প্রতিদিন বিকেল ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত সড়ক ও রেলপথ অবরোধ করে রাখবে।

পাটখাতে প্রয়োজনীয় অর্থবরাদ্দ, বকেয়া মজুরি-বেতন পরিশোধ, মজুরি কমিশন কার্যকর ও প্রতি সপ্তাহের মজুরি প্রতি সপ্তাহে প্রদানসহ ৯ দফা দাবিতে পাটকল শ্রমিকলীগের ডাকে দীর্ঘদিন শ্রমিকরা রাজপথে আন্দোলন করছেন।

এর আগে নরসিংদীর ঘোড়াশালের বাংলাদেশ জুটমিলেে শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ইউসুফ আলী সমকালকে জানান, ৫২০ তাঁতের এই জুট মিলে প্রায় তিন হাজার শ্রমিক-কর্মচারী কর্মরত। এক সময় বাংলাদেশ জুট মিল দেশের অন্যতম লাভজনক জুট মিল ছিল। কিন্তু বিজেএমসি কর্তৃপক্ষের অব্যবস্থাপনা ও উদাসীনতার কারণে মিলটি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে এসে দাঁড়িয়েছে। বিজেএমসি টাকা না দেয়ায় মিল কর্তৃপক্ষ ১১ সপ্তাহ ধরে শ্রমিকদের মজুরি ও তিন মাস ধরে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ভাতাদি দিতে পারছে না।

এই জুটমিলের সিবিএ সাধারণ সম্পাদক আখতারুজ্জামান বলেন, দীর্ঘদিন ধরে মজুরি না পেয়ে অনাহারে অর্ধাহারে দিন কাটাতে গিয়ে আমাদের পিঠ এখন দেয়ালে ঠেকে গেছে। ত্ইা মিল বন্ধ ছাড়া আর কোনো উপায় ছিল না। আমরা বিজেএমসির চেয়ারম্যানের পদত্যাগসহ বিজেএমসি বিলুপ্ত করার দাবি জানাচ্ছি।’

এদিকে শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ান রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, শ্রমিকদের মজুরি পরিশোধে আগামী সপ্তাহের মধ্যে পদক্ষেপ নেয়া হবে। কিন্তু দাবি বাস্তবায়িত না হওয়ায় রাজপথের আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে পাটকল শ্রমিকরা।

প্রসঙ্গত, গত ৮ মে বাংলাদেশ পাটকল করপোরেশনের (বিজেএমসি) শ্রমিক ও কর্মচারী ইউনিয়নের (সিবিএ) কার্যালয়ে পাটকল শ্রমিক লীগ ও সিবিএ ও নন সিবিএ’র বৈঠকে এ ধর্মঘটের ঘোষণা দেয়া হয়।