গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল, সাধারণ সম্পাদক রেজা কিবরিয়া

বিশেষ প্রতিনিধি:  জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক দল গণফোরামের ১১১ সদস্যবিশিষ্ট কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। সভাপতি পদে ড. কামাল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক পদে নতুন মুখ ড. রেজা কিবরিয়াকে নির্বাচিত করা হয়েছে।

আজ রোববার জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক দল গণফোরামের ১১১ সদস্যবিশিষ্ট কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এই কমিটির মেয়াদ এক বছর। আজ দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই কমিটি ঘোষণা করেন দলটির নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী।

গণফোরামের নতুন কমিটিতে নির্বাহী সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন যথাক্রমে- অধ্যাপক ড. আবু সাইয়িদ, অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী। এ ছাড়া সভাপতি পরিষদে আছেন অ্যাডভোকেট এ এইচ এম খালেকুজ্জামান, অ্যাডভোকেট আব্দুল আজিজ, মফিজুল ইসলাম খান কামাল, মোকাব্বির খান, আমসা আমিন, অ্যাডভোকেট জগলুল হায়দার আফ্রিক, অ্যাডভোকেট মহসিন রশীদ, অ্যাডভোকেট শান্তিপদ ঘোষ, অ্যাডভোকেট শফিক উল্লাহ, মেসবাহ উদ্দীন আহমেদ ও অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ জানে আলম।

গত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মোহসীন মন্টুকে এক নম্বর সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে। তবে তিনি সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন না।

এছাড়া ১১১ সদস্যের নতুন কমিটিতে সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন এড. মো. হেলাল উদ্দিন, লতিফুল বারী হামিম, এড. সেলিম আকবর, হীরণ কুমার দাস মিঠু, ডা, মিজানুর রহমান প্রমুথ । সম্পাদকমন্ডলীর বেশ কয়েকটি পদ খালি রাখা হয়েছে । এ বিষয়ে সুব্রত চৌধুরী বলেন, ‘পরবর্তী সময়ে এসব সম্পাদকীয় পদ পূরণ করা হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে সংসদ গঠন করা হয়নি।’

সংবিধান অনুযায়ী দেশের মালিক জনগণ উল্লেখ করে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘কিন্তু আজকে জনগণের সেই অধিকার নেই। তাদের অধিকার ফিরিয়ে আনতে ঝুঁকি নিয়ে আন্দোলন করতে হবে। আমি বিশ্বাস করি, তারা সক্রিয় হলে গণতন্ত্র উদ্ধার করতে পারবে। জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার নিয়ে গণফোরাম সচেতন।’ জনগণকে পাশে পেলে আন্দোলনের মাধ্যমে জনগণের অধিকার আদায় করা সম্ভব বলেও মন্তব্য করেন তিনি।