চাঁদপুরে লণ্ডভণ্ড অর্ধশত ঘরবাড়ি

নিউজ ডেস্ক:   চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার চরাঞ্চলে ঘূর্ণিঝড় ফণীর আঘাতে মসজিদসহ ৪০টির বেশি বসতঘর লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো এখন স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছে।

গতকাল দিবাগত রাত ৩টার দিকে ফণীর ঝড়ো বাতাসে উপজেলার বোরোচর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এতে ঘরের মালামাল-আসবাবপত্রের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য মো. জাফর উল্লা বলেন, ‘রাত ৩টার দিকে অনেক জোরে বাতাস বইতে থাকে। বাতাসের সঙ্গে বৃষ্টিও হয়েছে। এই ঝড়ে আমার ওয়ার্ডের প্রায় ৪০টি বসতঘরের চাল, বেড়া তছনছ হয়ে গেছে। আমি পুরো ওয়ার্ডের ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করছি। তবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ আরও বাড়তে পারে।’

স্থানীয় সানাউল্লাহ নামের একজন মাস্টার জানান, ফণীর ঝড়ে ঘর-বাড়ির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বসতঘর, রান্নাঘর, টিনের মসজিদ, বাজারের দোকানপাট উড়িয়ে নিয়ে গেছে। ঘরে থাকা খাট, শোকেস, আলমারি, অন্যান্য ফার্নিচারসহ ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। রাত ৩টার দিকে হঠাৎ ঝড়ো বাতাস শুরু হয়। যাদের ঘর উড়ে গেছে তারা আপাতত একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছে।

এখলাছপুরের ইউপি চেয়ারম্যান মোছাদ্দেক হোসেন মুরাদ বলেন, ‘আমার ইউনিয়নের বোরোচর এলাকায় রাতে ঝড়-তুফানে অনেক ঘর-বাড়ি উড়িয়ে নিয়ে গেছে। নির্দিষ্ট ক্ষতির পরিমাণ বলতে পারছি না, তবে তালিকা করছি। পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সহায়তা দেওয়া হচ্ছে। পরবর্তী সময়ে আমরা ঘর তোলার জন্য সহায়তা করব।’