ব্যবস্থাপত্র ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি বন্ধের নির্দেশ

নিউজ ডেস্ক:    চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র এবং যথাযথ মেডিকেল তত্ত্বাবধান (সুপারভিশন) ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি বন্ধে পদক্ষেপ নিতে ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালককে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

জনস্বার্থে বুধবার দায়ের করা এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বৃহস্পতিবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন।

এ আদেশ পাওয়ার দুই দিনের মধ্যে জেলা প্রশাসক ও সিভিল সার্জনদের প্রতি এ বিষয়ে সার্কুলার ইস্যু করতে বলা হয়েছে ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরেরর মহাপরিচালককে।

এছাড়া চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র এবং যথাযথ মেডিকেল তত্ত্বাবধান (সুপারভিশন) ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে তা জানতে চাওয়া হয়েছে রুলে।

স্বাস্থ্য সচিব, স্বাস্থ্য অধিদফতর ও ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক, জনপ্রশাসন সচিব এবং দেশের সব জেলা প্রশাসক ও সিভিল সার্জনকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

জনস্বার্থে বুধবার হাইকোর্টে রিটটি করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। বৃহস্পতিবার রিটের ওপর প্রাথমিক শুনানি নিয়ে আদালত আদেশ দেওয়ার পর ব্যারিস্টার সুমন সাংবাদিকদের বলেন, এই আদেশের পর চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া বাংলাদেশে আর অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি করা যাবে না।

রিট আবেদনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এক গবেষণার কথা উল্লেখ করা হয়। ওই গবেষণায় বলা হয়েছে, অ্যান্টিবায়োটিকের প্রতি শরীর প্রতিরোধ গড়ে তুললে সে অবস্থাকে বলা হয় অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স। এ প্রবণতার কারণে প্রতিবছর বিশ্বে সাত লাখ মানুষের মৃত্যু হয়। ২০৫০ সাল নাগাদ এ সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াবে এক কোটিতে।