পরিবেশবান্ধব’ বনলতা এক্সপ্রেসের উদ্বোধন বৃহস্পতিবার

নিউজ ডেস্ক:   রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রুটে বিরতিহীন ট্রেন ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ কাল (বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল) উদ্বোধন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ট্রেনটি উদ্বোধন করবেন বলে বুধবার রেল মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে।

বনলতা এক্সপ্রেসে ব্যবহৃত কোচ এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) অর্থায়নে ‘বাংলাদেশ রেলওয়ের জন্য মিটারগেজ ও ব্রডগেজ প্যাসেঞ্জার ক্যারেজ সংগ্রহ’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ইন্দোনেশিয়া থেকে আনা হয়েছে। কোচগুলোর অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো- বায়ো-টয়লেট সংযোজন।

দ্রুতগতির বিরতিহীন আধুনিক এ ট্রেনের ফলে রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রুটে চলাচলকারী যাত্রী সাধারণের নিরাপদ আসা-যাওয়া আরও সহজ, দ্রুত ও আরামদায়ক হবে বলে জানিয়েছে রেল মন্ত্রণালয়।

রেল মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বায়ো-টয়লেট সম্বলিত কোচের মাধ্যমে বনলতা এক্সপ্রেস চালুর মধ্য দিয়ে পরিবেশবান্ধব রেলব্যবস্থায় বাংলাদেশ আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল। ট্রেনটিতে প্রতিবন্ধী যাত্রীদের হুইল চেয়ারসহ চলাচলের সুবিধার্থে থাকছে প্রশস্ত দরজা (মেইন ও টয়লেট দরজা) এবং নির্ধারিত আসন সুবিধা। প্রতিটি কোচ স্টেইনলেস স্টিলের তৈরি এবং অত্যাধুনিক যাত্রী সুবিধা সম্বলিত। প্রতিটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কোচে আধুনিক ও উন্নতমানের রুফ মাউন্টেড এয়ার কন্ডিশনার ইউনিট এবং এয়ার কার্টেইন ব্যবস্থা রয়েছে।

কোচগুলো স্টেইনলেস স্টিলের বডির তৈরি। জার্মানির ডিজাইনে তৈরি উচ্চগতিসম্পন্ন বগি। জার্মানির তৈরি আধুনিক অটোমেটিক এয়ার ব্রেক সিস্টেম। বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী এলইডি লাইট। অজুখানাসহ নামাজের ঘর। সুইং ডোরের পরিবর্তে নিরাপদ স্লাইডিং ডোর। যাত্রী সাধারণের জন্য আধুনিক ও মানসম্মত চেয়ার, বার্থ, স্টেয়ার, পার্সেল রেক, টিভি মনিটর হ্যাঙ্গার, ওয়াই-ফাই রাউটার হ্যাঙ্গার, মোবাইল চার্জের ব্যবস্থা রয়েছে। রুফ রাইডারে পথিমধ্যে অনাকাঙ্ক্ষিত ট্রেন থামানো রোধে বিশেষভাবে ডিজাইনকৃত অ্যালার্ম চেইন পুলিং সিস্টেম। খাবার গাড়ির অত্যাধুনিক ডাইনিং সুবিধা রয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

আরও বলা হয়, ১২ কোচের মাধ্যমে ট্রেনটির মোট আসন সংখ্যা ৯২৮টি। এর মধ্যে এসি চেয়ার ১৬০টি, শোভন চেয়ার ৬৪৪টি, খাবার গাড়িতে আসন ১০৮টি এবং পাওয়ার কারে ১৬টি। শুক্রবার ছাড়া প্রতিদিন চলবে বনলতা।

ট্রেনটি রাজশাহী থেকে সকাল ৭টায় ছেড়ে ঢাকা পৌঁছাবে বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে এবং ঢাকা থেকে বেলা সোয়া ১টায় ছেড়ে রাজশাহী পৌঁছাবে সন্ধ্যা ৬টায়।

বনলতা এক্সপ্রেসের ভাড়া এ রুটে চলমান অন্য ট্রেনের ভাড়ার তুলনায় নন-স্টপ সার্ভিস চার্জ ১০ শতাংশ বেশি। এছাড়া ট্রেনটিতে প্রথম বাংলাদেশ রেলওয়ের নিজস্ব ক্যাটারিং অ্যান্ড ট্যুরিজম সার্ভিসেসের (বিআরসিটিএস) মাধ্যমে খাবার সরবরাহ করা হবে। খাবার মূল্য ১৫০ টাকাসহ শোভন চেয়ারের মূল্য ৪২৫ এবং এসি চেয়ারের মূল্য ৮৭৫ টাকা।