লাফিয়ে সম্ভ্রম রক্ষা করলেও বাসটি চিহ্নিত করতে না পারা . . .

মোহা: খোরশেদ আলম: ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ১ দিন যেতে না যেতেই চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের এক ছাত্রীকে বাস চালক ও হেলপার শ্লীলতাহানির  চেষ্টা করলে চলন্ত বাস থেকে লাফিয়ে সম্ভ্রম রক্ষা করলেন। চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন বলেন, এই শিক্ষার্থী বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন, মামলায় বাসটির চালক ও সহকারীকে আসামী করা হলেও বাসের ভেতওে কোন নম্বর না থাকায় এবং বাসটি দ্রত সময়ে পালিয়ে যাওয়া বাসটির নম্বর সনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। প্রতিটি বাসের ভেতরে ড্রাইভারের সামনে গাড়ির নম্বর ও বাস মালিকের মোবাইল নন্বর এবং গাড়িটি যে লাইনে চলাচল করে সে লাইনের সন্নিকটে থানা বা পুলিশ ফাঁড়ির নম্বর গাড়ির ভেতরে বাধ্যতামূলকভাবে লেখা থাকলে যাত্রী সাধারণ বিশেষ করে নারীদের বিভিন্ন অনাকাংখিত পরি¯ি’তি থেকে রক্ষা পেতে পারেন। পুলিশ একটু তৎপর হলে হয়তোবা সত্বর বাস চালক ও সহাকারী গ্রেফতার হবেন কিন্তু একটা বাসে যখন সঠিকভাবে নম্বর ভেতরে-বাইরে লেখা থাকবে, তখন যে কোন গাড়ির স্টাফ কোন দুর্বৃত্তায়নে সাহস করবেনা।
আবার অনেক গাড়ির সামনে পেছনে নম্বর প্লেটের লেখাগুলো অস্পষ্ট থাকার কারনে অভিযুক্ত গাড়ি সনাক্ত এবং ব্যবস্থা নেওয়া অসম্ভব হয়ে হয় পড়ে। চট্রগ্রামের বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীর ব্যাপারে সেরকম ঘটনাই ঘটেছে। ঐ ছাত্রীর অভিযোগ করা বাসটির ড্রাইভার, সহকারি ও বাসটিকে শনাক্ত করে আসামীদের দ্রত গ্রেফতারের চেষ্টা করছে বলে ওসি মহসিন জানান। জানা যায় ওই শিক্ষার্থী বৃহস্পতিবার বিকালে ক্লাস শেষ করে ১ নং গেট থেকে ৩ নং রুটের বাসে উঠেন। বাসটি নগরের রিয়াজউদ্দিন বাজার এলাকায় পৌঁছলে ওই ছাত্রী ছাড়া সবাই নেমে যায়। তখন সে বাসটিতে একা হয়ে পড়লে বাসটি রুট পরিবর্তন করে ষ্টেশন রোডের দিকে চলতে শুরু করলে ছাত্রীটি আতংকগ্রস্থ হয়ে বাসের চালককে বাসটি থামাতে বলেন। চালক বাসটি আরো জোরে চালাতে থাকলে হেলপার মেয়েটির ওড়না দিয়ে গলা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধের চেষ্টা করলে হাতে থাকা মোবাইল দিয়ে মাথায় আঘাত করে চলন্ত বাস থেকে লাফিয়ে সম্ভ্রম রক্ষা করে। বিআরটিএ, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এবং যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট জনগনের জোর দাবী, ছোট-বড় প্রতিটি গাড়িতে ফিটনেসের অংশ হিসেবে বাধ্যতামূলক গাড়ির ভেতরে নম্বর ও গাড়ির মালিকের মোবাইল নম্বরটি লিখে দিতে। বিশেষ প্রতিনিধি, ঢাকা নিউজ২৪.কম

ততততততততততততত   জজজজজজজজজজজজজজ     গগগগগগগগগগগগগগগ    গগগগগগগগগগগগগগগগগগগগ

                          গণপরিবহণের ভেতরে গাড়ি নম্বর লেখা বাধ্যতামূলক করা হোক
সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৮ইং 
(লেখাটি এর আগেও অনেক পত্রিকায় ছাপা হয়েছে কিন্তু আজ অবধি তা বাস্তবায়ন হয়নি। আমরা আশাবাদি আজ হয়নি, আগামী দিনে এর বাস্তবায়ন হবে)

Share on Facebook

Tweet on Twitter

মোহাঃ খোরশেদ আলম: ছোট বড় প্রায় প্রত্যেকটি যানবাহন রাস্তায় নামানোর পূর্বে ফিটনেসের পাশাপাশি গাড়ির সামনে-পেছনে সিরিয়াল ও নম্বর লেখা হয়। গাড়িটিকে বিভিন্নভাবে সনাক্ত করার উদ্দেশ্যে এই ব্যবস্থা নেয়া হয় বাধ্যতামূলকভাবে। পাশাপাশি গাড়ির ভেতরেও নম্বরটি থাকলে যাত্রীরা অনেক হয়রানী থেকে মুক্ত হবেন এবং অনেকক্ষেত্রে ভুলে রেখে যাওয়া মালামাল উদ্ধার করা সহজতর হবে।
বিশেষ করে, বর্তমানে যানবাহনগুলোতে মহিলা যাত্রীরা অনেকক্ষেত্রে নিরাপত্তাহীনতা ভুগেন, কিন্তু উক্ত ব্যবস্থা বাস্তবায়ন হলে চলাচলে অনেকটা নিরাপদ হবে। আমাদের দেশে গ্রামে-গঞ্জে, শহরের ভেতরে এবং হাইওয়ে রোডে যানবাহনগুলোতে যেসব যাত্রীরা চলাচল করেন, তারা গাড়ির ভেতরে অবস্থান করার কারনে গাড়িটিকে সনাক্ত করা কষ্টকর। কিন্তু গাড়ির ভেতরে নম্বরটি থাকলে অনায়াসে নম্বরটি লিখে রাখলে যে কোন পরিস্থিতিতে গাড়ি বা গাড়ির লোকজনকে চিহ্নিত করার সহজ হয়।
বর্তমানে মোবাইল-এর যুগ, তাই দূরের ভ্রমণে অনেকে জিজ্ঞাসা করে কোথায় আছ এবং কোন গাড়িতে আছ? বলতে পারেনা, না দেখে বলাও সম্ভব নয়। তাই ভেতরে নম্বরটি থাকলে তা অপরপ্রান্তের ব্যক্তিকে বলার সহজ হয়। অনেকে মহিলা বা বৃদ্ধ বাবা মা’কে তাদের এগিয়ে আনতে যোগাযোগ করা অনেকটা সহজ হয়। গাড়ির মালিকরা গাড়ি বিভিন্ন পিকনিক বা বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ভাড়া দেয়ার জন্য যেভাবে ছ্ট্রো করে লিখে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা সংস্থার মোবাইল নম্বর দেয়া হয়।
অনুরূপ, নির্দিষ্ট গাড়ির নম্বর লেখার পাশাপাশি গাড়ি মালিকের মোবাইল নম্বর, ড্রাইভার এবং গাড়িটি যে রোডে চলাচল করে সে রোডের সংশ্লিষ্ট থানার মোবাইল নম্বর বাধ্যতামূলতকভাবে লেখা থাকলে যাত্রীরা অনেক হয়রানি থেকে রক্ষা পাবেন এবং প্রতিটি গাড়িতে দুষ্টু প্রকৃতির লোকজন যে কোন অন্যায় করতে ভয় পাবে। মাননীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী, যোগাযোগ মন্ত্রীসহ উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তার দৃষ্টি আকর্ষন করছি, যাত্রীদের ভ্রমণ আরো নিরাপদ নিশ্চিত করতে উপরে উল্লেখিত ব্যবস্থা বাধ্যতামূলকভাবে বাস্তবায়ন করার আদেশ দিতে বিশেষভাবে অনুরোধ রইল। বিশেষ প্রতিনিধি, ঢাকা নিউজ২৪.কম