দেশে কৃষকের জীবন নিরাপদ নয়

সুমন দত্ত: দেশের খাদ্য যোগানদাতা হচ্ছে কৃষকরা। অথচ এই কৃষকদের জীবন নিরাপদ নয়। কৃষি ঋণ পরিশোধ করতে না পারায় কৃষককে কোমরে রশি বেধে কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। অন্যদিকে লক্ষ কোটি টাকার ঋণ খেলাপিদের রক্ষা করতে সরকার উদগ্রীব। এই কৃষক শ্রেণিকে বাচাতে সরকারের বলিষ্ঠ ভূমিকা থাকা দরকার।

সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে “কৃষক দেশ বাচায়” কৃষক বাঁচাতে দিন-শীর্ষক আলোচনা সভায় একথা বলেন বক্তারা। অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে বাংলাদেশ কৃষক উন্নয়ন সোসাইটি নামের একটি সংগঠন। 

বক্তারা বলেন, দেশের ৪৫ ভাগ মানুষ কৃষির উপর নির্ভরশীল। কৃষিতে জিডিপিতে ২৪ বিলিয়ন ইউএস ডলার। অথচ যাদের ওপর নির্ভর করে আজকের এই অবস্থান তাদের জীবন আজ নিরাপদ নয়। ব্যবসায়ীদের সরকার সিআইপি মর্যাদা দেয়। সেরা কৃষকদের সরকার সিআইপি মর্যাদা দেয় না।

অনুষ্ঠানে সরকারের কাছে কৃষকদের দাবি গুলো হচ্ছে, কৃষক বান্ধব জাতীয় কৃষি নীতি চাই। কৃষিতে ভর্তুকি দিতে হবে। কৃষি বীমা চালু করতে হবে। কৃষকদের মধ্যে সেরা উৎপাদনকারী ও সেরা বীজ উদ্ভাবকের জাতীয় মর্যাদা দিতে হবে। স্বল্প সুদে কৃষি ঋণ দিতে হবে। প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে কৃষি ঋণ মৌকুফ চাই। প্রতি ইউনিয়নে কৃষি বিপণন সমবায় চাই। নারী কৃষককে কৃষকের মর্যাদা দিতে হবে। নারী কৃষককে কৃষি কার্ড ও ঋণ সুবিধা দিতে হবে।

এদিন আলোচনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান, কলামিস্ট আবুল মকসুদ, রাজনীতিবিদ পঙ্কজ ভট্টাচার্য।

বিশেষ প্রতিনিধি, ঢাকানিউজ২৪ডটকম