সবুজ বিপ্লব হলেই দূষণ রোধ হবে

সুমন দত্ত: দেশে সবুজায়ন না হলে জলবায়ু পরিবর্তন জনিত সমস্যা মোকাবিলা সম্ভব নয়। তাই সবুজায়নের উপর সবাইকে গুরুত্ব দিতে হবে। বেশি করে গাছ লাগাতে হবে ও গাছের পরিচর্যা করতে হবে। তা না হলে জলবায়ু পরিবর্তনে প্রাকৃতিক বিপর্যয়কে ঠেকিয়ে রাখা যাবে না।

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে জলবায়ু সমস্যা মোকাবেলায় নবায়নযোগ্য জ্বালানীর ব্যবহার নিশ্চিতকরণ শীর্ষক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন বক্তারা।

অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে সবুজ আন্দোলন। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন শাহাবুদ্দিন মিয়া। তিনি জার্মানির গ্রিন পার্টির এমপি পদপ্রার্থী। বিশেষ অতিথি জার্মানির জিওগ্রাফার কারস্টেন রোখোল। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন বাপ্পি সরদার।

বক্তারা বলেন, খনিজ সম্পদ আহরণের কারণে দেশে প্রাকৃতিক বিপর্যয় ঘটার আশঙ্কা থেকে যায়। কয়লা পুড়লে বায়ু দূষণ হয়। তেমনি ইটভাটায় কাঠ পুড়লেও বাতাসে কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ বেড়ে যায়।

দেশে যেভাবে ইটভাটা গড়ে উঠছে, আর সুন্দরবন এলাকায় কয়লা পুড়িয়ে যেভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে, তাতে অচিরেই পরিবেশ দূষণ তীব্র আকার ধারণ করবে। সেক্ষেত্রে দেশে সবুজ বিপ্লব না ঘটলে এই দূষণ মোকাবিলা করা যাবে না। তাছাড়া নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহার করলে পরিবেশের ক্ষতি হয় না। তাই দেশের সব অঞ্চলে নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার বাড়াতে হবে।

বিশেষ প্রতিনিধি , ঢাকানিউজ২৪ডটকম