উন্নত সমৃদ্ধ নগরী বিনির্মাণে মানুষের ভালোবাসার মর্যাদা দিতে চাই : টিটু

মো. নজরুল ইসলাম, ময়মনসিংহ: দলমত নির্বিশেষে সকলের আপনজন, প্রিয়ভাজন, যেসব তথ্য আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাও জানতেন। যোগ্য প্রার্থীর প্রতিই তিনি পূর্ণ আস্থা রেখে ইকরামুল হক টিটুকেই তিনি ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন (মসিক) নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন দিলেন। প্রতিফলন ঘটালেন গণমানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষার। ফলে স্বভাবতই উচ্ছ্বাস-আনন্দে কাঁপছে সংস্কৃতির নগরী ময়মনসিংহ। এই উচ্ছ্বাস ইকরামুল হক টিটুর মনোনয়ন পাওয়ার খবরে। গাজীপুরে ময়মনসিংহ সীমান্ত হতে ময়মনসিংহ শহরের টাউন হল পর্যন্ত প্রায় ৬০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে বিশাল মোটার শোভাযাত্রার বহরে রাস্তার দুপাশে হাজার-হাজার নারী পুরুষ ফুলের পাপড়ি ছিটিয়ে স্মরণকালের বৃহৎ অভ্যর্থনা ও ফুলেল শুভেচ্ছায় অভ্যর্থনা জানান সদ্য আওয়ামীলীগের মনোনয়ন লাভকারী ইকরামুল হক টিটুকে । হাজার হাজার নারী-পুরুষের বাধ-ভাঙ্গা উচ্ছ্বাস ও আনন্দ শোভাযাত্রায় বিভিন্ন মোড় মোড়ে পথসভায় মহান রাব্বুল আলামিনের প্রতি কোটি কোটি শুকরিয়া এবং গণতন্ত্রের মানসকন্যা বাংলাদেশের সফল রাষ্ট্রনায়ক প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনা এমপির প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা ও শ্রদ্ধা জানিয়ে ইকরামুল হক টিটু বলেন, উন্নত সমৃদ্ধ নগরী বিনির্মাণের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ব শেখ হাসিনার আস্থা ও ময়মনসিংহের সর্বস্তরের মানুষের ভালোবাসার মর্যাদা যেন রাখতে পারি তার জন্য আল্লাহ পাকের তৌফিক এবং সকলের আন্তরিক সমর্থন ও দোয়া কামনা করছি।


শনিবার দুপুর সাড়ে ৩টায় দুই সহস্রাধিক মোটরসাইকেল, তিন শতাধিক কার-মাইক্রোবাস-ট্রাক- পিকআপ, খোলা জীপ নিয়ে বিশাল মোটার শোভাযাত্রার বহর নিয়ে ময়মনসিংহ সীমান্ত জৈনা বাজার হতে সিডষ্টোর,ভালুকা, ভরাডোবা, বগারবাজর, কাশিগঞ্জ সাইববোর্ড, চেলেঘাট, রাগামারা, ত্রিশাল, বৈলর মোড়, উইনারপাড়, চুরখাই, বেলতলী, বাইপাস মোড়. মাসকান্দা, চরপাড়া মোড়, ত্রিশাল বাসষ্ট্যান্ড, নতুন বাজার হয়ে টাউন হলে গিয়ে রাত সাড়ে ৮টায় পৌছেন। এসময় ময়মনসিংহে নেতা মোদের একটাই, সকলের প্রিয় টিটুভাই, প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা- স্বাগতম জানিয়ে বিভিন্ন শ্লোগানের প্রকম্পিত করে তুলে ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়ক। প্রায় ৬০ কিলোমিটার এলাকা পৌছতে চার ঘন্টা সময় লেগে যায়।


বহরে হাজার নেতাকর্মীর সাথে নেতৃত্বে ছিলেন ময়শনসসিংহ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকট জহিরুল হক খোকা, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, আমিনুল হক শামীম, অ্যাডভোকট পিযুষ কান্তি সরকার, ড. সামিউল আলম লিটন, প্রদীপ ভৌমিক, কাজী আজাদ জাহান শামীম, এম. কুদ্দুছ, শওকত জাহান মুকুল, ত্রিশাল পৌর মেয়র এবিএম আনিছুজ্জামান আনিছ, এমদাদুল হক চেয়ারম্যান, অধ্যক্ষ আবু সাইদ দ্বীন ইসলাম ফকরুল,  আবুল কালাম রাসেল, আনোয়ারুল হক রিপন, শাহীনুর রহমান শাহীন, ইমদাদুল হক সেলিম, শওকত ওসমান লিটন, মিরন চৌধুরী, মোস্তাফিজুর রহমান ভাসানী, নারী নেত্রী মাহমুদা মলিসহ প্রমূখ।

এরআগে শুক্রবার (৫ এপ্রিল) সন্ধ্যায় গণভবনে আওয়ামী লীগের কার্য নির্বাহী সংসদের সভায় ইকরামুল হক টিটুকেই আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেন দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা।

গত ২৫ মার্চ ময়মনসিংহ সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ৫ মে। মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ৮ এপ্রিল।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সময়োপযোগী ও সঠিক সিদ্ধান্তকে অভিনন্দন জানিয়েছেন জয়বাংলা নাগরিক পরিষদের সচিব ইঞ্জিনিয়ার নূরুল আমিন কালাম।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গত সাড়ে ৯ বছর পৌরসভার মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালনকালীন ময়মনসিংহ নগরীতে পরিকল্পিত উন্নয়ন, দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে সম্পর্কের সেতুবন্ধন রচনা করা, তাদের মূল্যায়ন করা, সব শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগসহ নানা কারণেই ক্ষমতাসীনদের মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে ছিলেন ইকরামুল হক টিটু। তিনি ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগেরও সহ-সভাপতি।

ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র হিসেবে সাড়ে ৯ বছর সফলতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের পর তার কর্মকান্ডে সন্তুষ্ট ও পূর্ণ আস্থা রেখেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে সিটি করপোরেশনের ‘প্রথম প্রশাসক’ হিসেবে নিয়োগ দিয়ে চমক সৃষ্টি করেন।