বারাণসী থেকে লড়ছেন প্রিয়াঙ্কা?

নিউজ ডেস্ক: জল্পনার অবসান ঘটিয়ে উত্তরপ্রদেশের বারাণসী থেকেই লড়ছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী! এমন খবর অবশ্য ছড়িয়েছে চারদিকে; তবে এখনও নিশ্চিত করে কিছুই বলা যাচ্ছে না। ব্যাপারটি সত্যি হলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

গত লোকসভা নির্বাচনে বারাণসী কেন্দ্রে লড়ে হেরেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এবার সেখানে কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কার লড়া নিয়ে কিছুটা আভাস পাওয়া যাচ্ছে বলে আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়েছ।

‘বারাণসী থেকে লড়লে কেমন হয়?’- দলের কর্মীদের সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বৃহস্পতিবার হাল্কাচ্ছলেই কথাটি বলেছিলেন প্রিয়াঙ্কা। উত্তরপ্রদেশের কংগ্রেসের নেতারা এটি প্রিয়াঙ্কার রসিকতা বলেই উড়িয়ে দিচ্ছিলেন। কিন্তু শুক্রবার দিল্লিতে কংগ্রেসের এক নেতা বললেন, ‘উড়িয়ে দেওয়ার বিষয় নয়। বারাণসীতে নরেন্দ্র মোদিকে টক্কর দিতে একজন ওজনদার প্রার্থীই চাইছেন রাহুল গান্ধী। সেটি প্রিয়াঙ্কা হলে আশ্চর্যের কিছু নেই।’

ওই নেতার মতে, রাহুল ব্যাকফুটে খেলার পাত্র নন। তিনি সব সময়ে ফ্রন্টফুটেই খেলেন। উত্তরপ্রদেশে দলের সংগঠন মজবুত নয় জেনেও তিনি মায়াবতী-অখিলেশকে টক্কর দিচ্ছেন। হার-জিতের থেকেও লড়াকু মনোভাব রাখতেই পছন্দ করেন।

তার ভাষ্য, রাজস্থানের বিধানসভা নির্বাচনে বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়ার বিরুদ্ধে তিনি যশবন্ত সিংহের ছেলে মানবেন্দ্র সিংহকে প্রার্থী করেছিলেন, মধ্যপ্রদেশে শিবরাজ সিংহ চৌহানের বিরুদ্ধে লড়বার জন্য রাজ্যের প্রাক্তন সভাপতি অরুণ যাদবকে প্রার্থী হতে রাজি করিয়েছিলেন, ছত্তিশগড়ে রমন সিংহের বিরুদ্ধে অটলবিহারী বাজপেয়ীর ভাইজি করুণা শুক্লকে দাঁড় করিয়েছিলেন। ফলে বারাণসীতেও মোদির বিরুদ্ধে প্রিয়াঙ্কা প্রার্থী হতেই পারেন।

রায়বরেলী থেকে অযোধ্যা যাওয়ার পথে শুক্রবার প্রিয়াঙ্কাকে ফের প্রশ্ন করা হয়, তিনি কী বারাণসী থেকে লড়তে আগ্রহী। সম্ভাবনা একেবারে খারিজ করেননি খোদ প্রিয়াঙ্কাই। বরং তিনি বলেন, ‘আমি আগেই বলেছি, দল বললে নিশ্চয়ই লড়ব। তবে আমার ব্যক্তিগত পছন্দ এখন দলের হয়ে কাজ করা।’

কিন্তু রায়বরেলী হয়ে অযোধ্যায় রোড-শো-এর ফাঁকে মোদিকে দফায় দফায় আক্রমণ করেছেন প্রিয়াঙ্কা। আর বার বার তাঁ মুখে ঘুরে ফিরে এসেছে বারাণসীর কথা।

মোদীর ‘মিশন-শক্তি’ নিয়ে কটাক্ষ করে প্রিয়াঙ্কা বলেন, ‘বারাণসীতে গ্রামবাসীদের আমি জিজ্ঞাসা করেছি, প্রধানমন্ত্রী আসেন আপনাদের সঙ্গে দেখা করতে? উত্তর এসেছে- না। গোটা দুনিয়া তিনি ঘুরে বেড়ান। আমেরিকা, চিন দাপিয়ে বেড়ান। বড় বড় পোস্টারে সব জায়গায় তার ছবি দেখা যায়। রাষ্ট্রনায়কদের আলিঙ্গন করেন। কিন্তু নিজের লোকদেরই আলিঙ্গন করেন না। যদি নিজের লোকেদেরই কথা তিনি শুনতে না পারেন, তা হলে কীসের ‘শক্তি’ আপনার মধ্যে?’

পাকিস্তানে গিয়ে মোদির বিরিয়ানি খাওয়া নিয়ে কটাক্ষ করেন প্রিয়াঙ্কা। অযোধ্যা রোড-শো করলেও তিনি রামলালা দর্শনে যাননি। যুক্তি হিসেবে বলেন, সেটা বিচারাধীন।

গত লোকসভা ভোটে বারাণসী কেন্দ্র থেকে মোদি পেয়েছিলেন প্রায় ৬ লক্ষ ভোট। অরবিন্দ কেজরিওয়াল সেই সময় তাকে টক্কর দিয়ে ২ লক্ষের বেশি ভোট পান। কংগ্রেসের অজয় রাই পান ৭৫ হাজার ভোট।

অজয় রাই বলছেন, ‘এ বার প্রিয়াঙ্কা গান্ধী প্রার্থী হলে গোটা পূর্বাঞ্চলের ছবিটা বদলে যাবে। রাহুল গান্ধীকে আমরা আগেই আর্জি জানিয়েছি, প্রিয়াঙ্কাকে বারাণসী থেকে প্রার্থী করুন।’