কুলাউড়ার মানুষের কথা ভেবেই শপথ নিয়েছি : মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশে সুলতান মনসুর

এম শাহবান রশীদ চৌধুরী মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: জেলার কুলাউড়া উপজেলা শহরের স্বাধীনতা সৌধ চত্তরে ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে বীর মুক্তিযোদ্ধারদের সংবর্ধনা অনুষ্টানে প্রধান অতিথি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য,ডাকসুর সাবেক ভিপি,সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ এমপি বলেছেন,আমি কুলাউড়ার মানুষের কথা ভেবেই শপথ নিয়ে সংসদে গিয়েছি।

কুলাউড়ার মানুষ দীর্ঘদিন ধরে শোষিত, নির্যাতিত, অবহেলিত ছিল। তাই সবাইকে স্পষ্ট করে একটি কথা বলতে চাই কুলাউড়ায় আর কোন অন্যায়,অবিচার, দূর্ণীতি চলতে দেয়া হবে না। বঙ্গবন্ধুর আদর্শে সু-শাসনের পক্ষে একজন সেবক হয়ে কুলাউড়াকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সৃষ্টিশীল কাজ করে যাব।ইউএনও মুহাম্মদ আবুল লাইছ এর সভাপতিত্বে ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ শিমুল আলীর পরিচালনায় সমাবেশে সুলতান মনসুর মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদানদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে এদেশের কৃষক-জনতা,ছাত্রসমাজসহ সবাই মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিল বলে এদেশ স্বাধীন হয়েছে। এতে কোন দ্বিমত নেই।

তাই বঙ্গবন্ধু ও জয়বাংলা যারা মেনে নেবেন না এ দেশের মাটিতে তাদের কেউ কোনদিন ক্ষমতায় আসার সুযোগ পাবেন না।বিদ্যুতের অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন আমি শুনেছি সরকার কর্তৃক বরাদ্দকৃত বিদ্যুৎতের খুটি স্থাপন ও স্থানান্তরিত করতে একটি বিশেষ গুষ্টি নাকি কুলাউড়ার সাধারণ মানুষের কাছে টাকা চায়। যারা এসব কাজে লিপ্ত তাদের হাত-পা বেধে আমাকে খবর দেবেন। আমি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।

তিনি মহান স্বাধীনতা দিবসের চেতনায় শপথ নিয়ে দূর্ণীতিমুক্ত সম্প্রীতির কুলাউড়া গড়তে সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করার আহ্বান জানান।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি,সাবেক এমপি মোঃ আব্দুল মতিন,উপজেলা চেয়ারম্যান আসম কামরুল ইসলাম,পৌর মেয়র শফি আলম ইউনুছ,ওসি ইয়ারদৌস হাসান,উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রেনু,সহ-সভাপতি অরবিন্দু ঘোষ বিন্দু,যুগ্ম-সম্পাদক আব্দুল মোক্তাদির তোফায়েল,সাংগঠনিক সম্পাদক মনছুর আহমদ চৌধুরী,পৌর সম্পাদক গৌরা দে,জাপা যুগ্ম-সম্পাদক মবশ্বির আলী,জাসদ সভাপতি মইনুল ইসলাম শামীম কুলাউড়া প্রেসক্লাব সভাপতি এম শাকিল রশীদ চৌধুরী,বীর মুক্তিযোদ্ধা কমলা কান্ত ভৌমিক,সাবেক ডেপুটি কমান্ডার মাসুক মিয়া,মুক্তিযুদ্ধের সন্তান কমান্ড কাউন্সিলের সম্পাদক সালাহ উদ্দিন প্রমুখ।