বিজেপি ছাড়লেন ২৫ নেতা, বিপত্তিতে মোদি

নিউজ ডেস্ক:   ভারতের লোকসভা নির্বাচনের আগে বড় ধরনের এক ধাক্কা খেলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। উড়িষ্যার পাশাপাশি উত্তর-পূর্বের একাধিক রাজ্য থেকে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) ছেড়েছেন প্রায় ২৫ জন নেতা।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিধানসভা নির্বাচনে এই নেতাদের বিজেপি থেকে মনোনয়ন না দেওয়ায় তারা ক্ষুব্ধ হয়ে দল ছেড়েছেন। গত সপ্তাহে অরুণাচল প্রদেশের ১৮ জন বিজেপি নেতা দল ছেড়েছেন। আগামী ১১ এপ্রিল থেকে ভারতে সাধারণ নির্বাচন শুরু হওয়ার কথা। ওইদিন অরুণাচলের বিধানসভার নির্বাচনও হওয়ার কথা রয়েছে। নির্বাচনের মাত্র তিন সপ্তাহ আগে একসঙ্গে এত নেতা পদত্যাগ করায় রাজ্য বিজেপি বিপর্যয়ে পড়েছে।

বিজেপি নেতারা দল ছেড়ে মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমার নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল পিপলস পার্টিতে (এনপিপি) যোগ দিয়েছেন। বিজেপির এই অন্যতম মিত্র দলটি এবার এককভাবে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

থমাস সাংমা জানান, অরুণাচল প্রদেশে ৩০ থেকে ৪০ টি আসন পেয়ে ক্ষমতায় আসবে এনপিপি।

এদিকে এখন পর্যন্ত উত্তরপূর্বাঞ্চলের মাত্র দুটি দলকে বিজেপি নিজেদের জোটে ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে। অরুণাচল প্রদেশে যে নেতারা বিজেপি ছেড়েছেন তাদের মধ্যে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কুমার ওয়ালি, পর্যটনমন্ত্রী জারকার গামলিন, রাজ্য বিজেপির মহাসচিব জারপুম গামবিন ও আরও ছয় আইনপ্রণেতা রয়েছেন।

রাজ্যের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী কুমার ওয়ালি জানান, বিজেপি নেতারা বলেন তাদের কাছে দেশ সবার আগে। তারা কংগ্রেসকে পরিবারতান্ত্রিক দল বলে কটাক্ষ করেন। অথচ অরুণাচল প্রদেশ শুধু মুখ্যমন্ত্রীর পরিবার তিনটি টিকিট পেয়েছে।

দলের অপর নেতা জানান, যদি আগে বলে দেওয়া হত যে টিকিট দেওয়া হবে না তাহলে তিনি বিজেপি থেকে যেতেন। তার কথায়, ‘আমার কাছে দুটো বিকল্প ছিল, হয় আমায় বিজেপি কে বেছে নিতে হতো নয়ত আমার সমর্থকদের কথা শুনতে হত। গণতন্ত্রে দল মানুষের আগে নয়। তাই আমি আমার অনুগামীদের কথা শুনেই বিজেপি ছাড়লাম।’

এদিকে বুধবার নিজেদের চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করতে পারে এনপিপি।

রাজ্য বিধানসভার নির্বাচনের জন্য বিজেপি ইতিমধ্যে নিজেদের ৫৪ প্রার্থীর তালিকা ঘোষণা করেছে, তাতে এসব নেতাদের নাম ছিল না।