ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার মাহমুদ হাসান চিকিৎসার্থে সিঙ্গাপুর যাচ্ছেন ২০ মার্চ, রোগমুক্তি কামনায় মসজিদে মসজিদে দোয়া


মো. নজরুল ইসলাম, ময়মনসসিংহ :
ময়মনসিংহের বিভাগীয় কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) মাহমুদ হাসান অসুস্থতাজনিত কারণে বর্তমানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ)তে ভর্তি রয়েছেন।  উন্নত চিকিৎসার জন্য বিভাগীয় কমিশনার মাহমুদ হাসান আগামী ২০ মার্চ সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতলে ভর্তির উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করবেন বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে। এদিকে ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার মাহমুদ হাসানের রোগমুক্তি কামনায় মসজিদে মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৫ মার্চ শুক্রবার ময়মনসিংহ বড় মসজিদ বাদ জুমা বিভাগীয় কমিশনারের আশুরোগ মুক্তি কামনায় বিশেষ দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় মুনাজাত পরিচালনা করেন বড় মসজিদের পেশ ইমাম ও খতীব মাওলানা আব্দুল হক।
ময়মনসিংহ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ হাফিজুর রহমানের উদ্যোগে ময়মনসিংহ বড় মসজিদ, জেসিগুহ রোডস্থ মসজিদুত তাক্বওয়া ও মা‘আরিফুল কুরআন নুরানী হাফিজিয়া মাদরাসা সহ সদর উপজেলার বিভিন্ন মসজিদে বিভাগীয় কমিশনার মাহমুদ হাসানের আশু রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন ময়মনসিংহ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ হাফিজুর রহমান। এছাড়াও নানা শ্রেণী পেশার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিগণ দোয়ায় শরীক হন। দোয়া শেষে মুসল্লিদের মাঝে তবারক বিতরণ করা হয়। এছাড়াও বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবসে নিরাপদ মানসম্মত দিবস শীর্ষক সেমিনারে আলোচনা শেষে ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার মাহমুদ হাসানের রোগ মুক্তি কামনা করে দোয়া করা হয়।
ময়মনসিংহের বিভাগীয় কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) মাহমুদ হাসান অসুস্থতাজনিত কারণে বর্তমানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ)তে ভর্তি রয়েছেন। তার রক্তে WBC, RBC, Platelets খুব দ্রুত কমে যাচ্ছে, বোনমেরু থেকে নতুন রক্ত সেল প্রোডাকশন রেট খুব কম, তাছাড়া ব্লাডসুগারও অত্যধিক। মেডিক্যাল বোর্ডের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগণ তাকে দ্রুত সিঙ্গাপুরে নিয়ে চিকিৎসা করানোর পরামর্শ দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্র্যালয়ের সহযোগিতায় আগামী কয়েকদিনের মধ্যে সিঙ্গাপুরে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি চলছে বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে।
পারিবারিক সূত্রে জানায়, বিভাগীয় কমিশনার মাহমুদ হাসানের পর্যন্ত ৩০টির উপরে পরীক্ষা করা হয়েছে। সর্বশেষ বোনমেরু টেস্টের মাধ্যমে নিশ্চিত হওয়া গেছে ব্লাডে প্ল্যাটিলেট বা অন্যান্য উপাদান স্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। তার বোনমেরুর ট্রান্সপ্ল্যান্ট করতে পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা যা অত্যন্ত ব্যয় বহুল।

u