লিটন নন্দীকে ধাওয়া, নুরুকে পিটুনিতে চিকিৎসা কেন্দ্রে

নাইম রহমান/ফারজানা: ঢাকা নিউজ: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে প্রগতিশীল ছাত্র ঐক্য প্যানেলের সহ-সভাপতি পদপ্রার্থী লিটন নন্দীকে হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলে ছাত্রলীগ কর্মীরা ধাওয়া দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও নির্বাচেন ভিপি প্রার্থী নুরুল হক নুরুকে মারধোর ও লাঞ্ছিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

লিটন নন্দী সাংবাদিকদের বলেন, সকাল ১১টার দিকে আমরা মুহসীন হলের ভোটকেন্দ্র পরিদর্শনে গেলে ছাত্রলীগ নেতা সানির নেতৃত্বে কয়েকজন শিক্ষার্থী আমাদের ধাওয়া করে। আমরা কেন্দ্রীয় সংসদের প্রার্থী হওয়া সত্ত্বেও আমাদেরকে হলে ঢুকতে বাধা দেওয়া হয়। তারপর আমরা সেখান থেকে বের হয়ে প্রভোস্ট স্যারের সঙ্গে দেখা করতে চাইলে ছাত্রলীগের লোকজন আমাদেরকে ধাওয়া করে।

এ সময় হলের প্রভোস্ট এবং নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, হামলার যে সংস্কৃতি বিরাজমান রয়েছে তা থেকে আমরা আশঙ্কা করতে পারি ভোটগ্রহণ সুষ্ঠুভাবে হচ্ছে না। রোকেয়া হলে নয়টি ব্যালটবাক্স আসার কথা থাকলেও ছাত্রীদের ছয়টি বাক্স দেখানো হয়েছে। আর তিনটি ব্যালটবাক্স হল সংসদ রুমে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়েছে। সেগুলো ছাত্রীদের দেখানো হচ্ছে না।

অন্যদিকে ডাকসু নির্বাচেন ভিপি প্রার্থী নুরুল হক নুরু ছাত্রলীগ কর্মীদের হাতে মারধরের শিকার ও লাঞ্চিত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। দুপুর ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আহত অবস্থায় তাকে চিকিৎসা কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দুপুরে ভিপি প্রার্থী ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক শোভন ও জিএস প্রার্থী সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী তাদের নেতাকর্মীদের নিয়ে রোকেয়া হলে যান। এসময় কোটা আন্দোলনের নেতা ও ভিপি প্রার্থী নুরুল হক নুরুও সেখানে যান। এরপরই ছাত্রলীগের ছেলে ও মেয়ে কর্মীরা তার ওপর হামলা চালায়। পরে তাকে হাসপাতালে পাঠানো হয়।