মাউন্ট এলিজাবেথে ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসা শুরু

নিউজ ডেস্ক:  সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসা শুরু হয়েছে। বাংলাদেশ সময় সোমবার রাত আটটা ৫০ মিনিটে হাসপাতালে পৌঁছালে তাৎক্ষণিকভাবে তার চিকিৎসা শুরু হয়। এর আগে তাকে বহনকারী এয়ার অ্যাম্বুলেন্স রাত আটটার দিকে সিঙ্গাপুরে পৌঁছায়।

ভারতের প্রখ্যাত কার্ডিওলজিস্ট দেবী শেঠির পরামর্শে সোমবার বিকেল চারটা ১২ মিনিটের দিকে তাকে বহনকারী এয়ার অ্যাম্বুলেন্সটি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে যাত্রা করে।

ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে তার সহধর্মিনী ইশরাতুন্নেছা কাদের এবং ব্যক্তিগত চিকিৎসক কার্ডিওলজিস্ট অধ্যাপক ডা. আবু নাছের রিজভী রয়েছেন। ঢাকা থেকে সিঙ্গাপুরের পথে কাদেরকে দেখভাল করার জন্য এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে আছেন মাউন্ট এলিজোবেথ হাসপাতালের দুজন চিকিৎসক, একজন নার্স ও একজন টেকনিশিয়ান। রবিবার সন্ধ্যায় এয়ার অ্যাম্বুলেন্সের সঙ্গেই ঢাকায় এসেছিলেন তারা।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া ভারতের প্রখ্যাত কার্ডিওলজিস্ট ডা. দেবী শেঠির বক্তব্য উদ্ধৃত করে সাংবাদিদের বলেন, ‘ওবায়দুল কাদেরকে চিকিৎসায় এখন পর্যন্ত যা কিছু করা হয়েছে, তা সঠিক।’ তিনি বলেন, তার (ওবায়দুল কাদের) শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে, তবে শঙ্কামুক্ত নন। আমরা ওবায়দুল কাদেরের চিকিত্সার সর্ব শেষ অবস্থা পর্যবেক্ষণে ডা. দেবী শেঠির পরামর্শের অপেক্ষা করছিলাম।

ওবায়দুল কাদের ভেন্টিলেশন খোলার ইশারা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন চিকিত্সকরা। অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আলী আহসান বলেন, রবিবারের চেয়ে তার অবস্থা স্ট্যাবল, তবে শঙ্কামুক্ত নয়। সকাল থেকে তিনি তাকাচ্ছেন এবং ইশারা করছেন। কয়েকবার ভেন্টিলেশন খোলার ইশারা দিয়েছেন। এর মানে তিনি স্বাভাবিকভাবে শ্বাস নিতে চাচ্ছেন। এটা ভালো লক্ষণ। তাকে ঘুমের ওষুধ দিয়ে রাখা হয়েছে, যাতে তিনি যন্ত্রণামুক্ত থাকতে পারেন।