বালাকোটে বিমান হামলায় নিহত ৩৫, ইতালিয় সাংবাদিকের দাবি

সুমন দত্ত: পাকিস্তানের বালাকোটে ভারতীয় বিমান হামলায় নিহতের সংখ্যা নিয়ে ধোঁয়াশা অবশেষে কাটতে শুরু করেছে। সোমবার ইতালির এক সাংবাদিক ওই ঘটনায় নিহতের সংখ্যা কমপক্ষে ৩৫ জন জানান। WION নামের একটি ইংরেজি চ্যানেলকে এ তথ্য দেন তিনি। রোম থেকে ভিডিও ফোনে এক সাক্ষাতকারে হামলা সম্পর্কে বিস্তারিত জানায় ওই সাংবাদিক। পাকিস্তানের বালাকোটের এক বাসিন্দা এই তথ্য তাকে জানিয়েছেন। ওই বাসিন্দা ঘটনাস্থলের পাশেই থাকতেন। তিনি নিজে এসব দেখেছেন বলে তাকে জানিয়েছে। ইতালির ওই সাংবাদিকের নাম ফ্রান্সেসকা মারিনো।

মারিনো বলেন, ২৬ ফেব্রুয়ারি ভারতীয় বিমান হামলায় নিহতের সংখ্যা ৪০ থেকে ৫০ জনের মধ্যে হবে। আহতের সংখ্যা ৩৫ থেকে ৪০। হামলার পর পরই পাকিস্তানের আর্মি পুরো এলাকা ঘিরে ফেলে। স্থানীয় লোকজনদের কাউকে সেখানে ঘেষতে দেয়া হয়নি। এমনকি যে অ্যাম্বুলেন্সের মধ্য দিয়ে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় সেগুলোর চালক ও সহকারীদের কাছ থেকে মোবাইল ফোন কেড়ে নেওয়া হয়েছিল। হামলায় জঙ্গিদের সঙ্গে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সদস্যও মারা গিয়েছিল। যাদের মধ্যে পাকিস্তানের দুজন কর্নেল ছিলেন। নিহত একজনের পরিচয় জানতে পারেন তিনি। ওই লোক পাকিস্তানের সাবেক গোয়েন্দা ছিলেন। তিনি ইন্টার সার্ভিস ইন্টেলিজেন্স সংক্ষেপে আইএসআই হয়ে কাজ করতেন। স্থানীয়ভাবে তাকে কর্নেল সেলিম বলা হতো। আরেকজন কর্নেল জারার জাকির গুরুতর আহত হয়। এছাড়া জইশই মোহাম্মদের প্রশিক্ষক মুফতি মঈন ও বোমা বিশেষজ্ঞ উসমান গনি এই বিমান হামলায় নিহত হয়েছে।

মারিনো শতভাগ নিশ্চিত হয়ে এই তথ্য জেনেছেন। এমনটাই তিনি নিউজ চ্যানেলে দাবি করেন। মারিনো আরো বলেন, হামলাস্থলের আশপাশের মানুষ আতঙ্কগ্রস্ত ছিল। সেখান থেকে তথ্য ও সাক্ষ্য প্রমাণ বের করে আনা কঠিন ছিল। তবে তিনি নিশ্চিত এ সংক্রান্ত ভিডিও প্রমাণ তিনি যোগার করতে পারবেন।

মারিনোর একটি টুইটার অ্যাকাউন্ট আছে যেখানে তিনি নিজেকে একজন দক্ষিণ এশিয়া বিশেষজ্ঞ বলে দাবি করেন। পাকিস্তান অ্যাপোক্লাইপস নামের একটি বইয়ের কো-অথর তিনি।

প্রসঙ্গত, পাকিস্তানের ভারতীয় বিমান হামলায় কেউ মারা যায়নি। এমন দাবি ছিল পাকিস্তানের। আর ভারতের দাবি ছিল এই হামলায় ৩০০ থেকে ৩৫০ নিহত হয়েছে। পরে এ নিয়ে বিতর্ক শুরু হয় আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে। রয়টার্স ১ জন আহত হওয়ার খবর প্রকাশ করেছিল। পাকিস্তান পাইন গাছ ও একটি কাক নিহতের দাবি করে। এদিকে বিজেপি এমপি আলুওয়ালিয়া কেউ নিহত হয়নি এমন কথা সংসদে জানায়। ভারতের বিরোধী দলগুলো বিমান হামলায় নিহতের তথ্য প্রমাণ সরকারকে দেখাতে বলে। সরকার এসব দেখাবে না বলে জানায়।

এদিকে ভারতীয় বিমান বাহিনী প্রধানের দাবি পাকিস্তান যদি সত্যিই আক্রান্ত না হয় তবে প্রতিশোধমূলক হামলা কেন চালাতে গেল। এই প্রশ্ন মিডিয়ায় রাখেন। সূত্র দি উইক, জিনিউজ