ওবায়দুল কাদেরের অবস্থা ক্রমান্বয়ে উন্নতির দিকে

নিউজ ডেস্ক:   বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের অবস্থা ক্রমান্বয়ে উন্নতির দিকে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ।

সোমবার বিএসএমএমইউতে এসে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান তিনি।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, দলের সাধারণ সম্পাদকের অবস্থা ক্রমান্বয়ে উন্নতির দিকে যাচ্ছে। তার চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা ডাক্তাদের সঙ্গে আমি কথা বলেছি। তারা জানিয়েছেন- তাকে সর্বোচ্চ চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

রোববার ভোরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি হন ওবায়দুল কাদের। সেতুমন্ত্রীর চিকিৎসার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ডের প্রধান ও বিএসএমএমইউর কার্ডিওলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আলী আহসান রোববার সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের জানান, তিনি পা নাড়াতে পারছেন। ডাকলে চোখও খুলছেন। তবে তার শারীরিক অবস্থার এখনও কোনো উন্নতি হয়নি। ২৪ থেকে ৭২ ঘণ্টা না গেলে এ সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করা যাবে না।

গুরুতর অসুস্থ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদককে দেখতে হাসপাতালে যান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা এবং স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। হাসপাতাল চত্বরে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন দল এবং সহযোগী-ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের সব পর্যায়ের নেতাকর্মী এবং সাধারণ মানুষকেও তার অবস্থা জানতে ভিড় করতে দেখা গেছে।

এর আগে হাসপাতালে আনার পরপরই চিকিৎসকদের পরামর্শে প্রথমে সিটি স্ক্যান ও পরে এনজিওগ্রাম করা হলে ওবায়দুল কাদেরের হৃদযন্ত্রের তিনটি রক্তনালিতে (আর্টারি) ব্লক ধরা পড়ে। এর মধ্যে একটিতে রিং পরানো হয়। পরে তার চিকিৎসায় বিএসএমএমইউর কার্ডিওলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আলী আহসানের নেতৃত্বে উচ্চপর্যায়ের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়।

ওবায়দুর কাদেরের উন্নত চিকিৎসার জন্য রোববার রাতে সিঙ্গাপুরের একটি চিকিৎসক দল বিএসএমএমইউতে এসে পৌঁছেছে। তারা ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাগজপত্র পর্যালোচনার পাশাপাশি হাসপাতালের চিকিৎসকদের সঙ্গে আলোচনা করেন। 

বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ূয়া সাংবাদিকদের বলেন, সেতুমন্ত্রীর শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে কিছুটা উন্নতি হয়েছে। সিঙ্গাপুরের চিকিৎসক দলের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত হয়েছে, আপাতত তাকে সিঙ্গাপুরে নেওয়া হচ্ছে না। আগামী ২৪ ঘণ্টা শারীরিক অবস্থা পর্যালোচনা করে তার চিকিৎসার পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করা হবে।