ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়কে বারবাজার এলাকায় রাস্তার বেহাল অবস্থা!‍

জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ-যশোর মহা সড়কের বারবাজার এলাকায় খানাখন্দ সৃষ্টি হওয়ায় সকল যানচলাচল বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। মহা সড়ক বন্ধ হয়ে গেলে দুরপাল্লার যানবাহন গুলোর পড়তে হয় মহা বিপদে। ফলে তারা বাধ্য হয়ে বিকল্প রাস্তা ঘুরে ২০/২৫ কিলোমিটার দিয়ে হয়। বিশেষ করে রাস্তায় এসব নিম্ন মানের মালামাল দিয়ে সড়ক করা হয়েছে যা চলতে গেলে ভারি যানবাহন গুলো বিকল হয়ে রাস্তা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। ঝিনাইদহ কালীগঞ্জ উপজেলার বারবাজার মহাসড়কের উপর দিয়ে প্রতিদিন দিনরাত সর্ব বাস, ট্রাক, পিকআপ ভ্যানসহ ছোটবড় যানবাহন চলাচল করে। কয়েক দিনের বৃষ্টিতে বারবাজার তেল পাম্পের সামনে রাস্তা ভেঙ্গে কাদামাটি সৃষ্টি হওয়ায় সব ধরনের যানবাহন চলাচল হয়ে যায়। এজন্য দূরপাল্লার যাত্রীদের চরম দূভোর্গ পোহাতে হয়। যশোর-ঝিনাইদহ মহাসড়কে তীব্র যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। মহাসড়কে খানা-খন্দ সৃষ্টি হওয়ায় বেড়েছে দুর্ঘটনার ঝুঁকি।গত মাস দুয়েক আগে রাস্তার অংশ ভেঙে পড়ে।

এরপর থেকে স্থানীয়রা বিকল্প সড়কে চলাচল করতো। রাস্তা ভেঙে যাওয়ার পর আধা কিলোমিটার একবারেই চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এরপর থেকে ২০ কিলোমিটার পথ ঘুরে কালীগঞ্জ-খাজুরা সড়ক দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। বারবাজারে রাস্তার দু,পাশে দুটি ট্রাক মাটিতে আটকিয়ে যাবার কারণে মহাসড়ক দিয়ে দু’পাশের যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। আবার রঘুনাথপুর এলাকায় মহাসড়কের যে অবস্থা তাতে করে যে কোন সময় আবার বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটে সড়কটি বন্ধ হয়ে যেতে পারে। বিশেষ করে বারবাজার এলাকায় সড়কের সমস্যার কারণে যানবাহন চলাচল করতে পারেনি ঠিক ভাবে। শত শত গাড়ি আটকিয়ে লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। ফলে বারবাজার এলাকায় ও রঘুনাথপুর নামক স্থানে মহাসড়ক মেরামত না করলে আবার ও যানবাহন মাটিতে বেধে সড়কে যানবাহন চলাচল বিঘ্ন ঘটতে পারে। এসব স্থানে মেরামত করা দ্রুত হয়ে পড়েছে। চালকরা বলছে রাস্তা সংস্কার না করার কারণে গাড়ি বিকল হয়ে পড়ছে যে কারণে তারা জীবনের ঝুকি নিয়ে চলচল করতে হয়।

ঢাকানিউজ২৪ডটকম/জাহিদ।