করমুক্ত আয় সীমা ৫ লাখ টাকা করাসহ ৮ দফা দাবি

নিউজ ডেস্ক: আগামী বাজেটে নারী উদ্যোক্তাদের জন্য করমুক্ত আয় সীমা ৫ লাখ টাকা এবং বছরে ৫০ লাখ টাকা টার্নওভার হয় এমন প্রতিষ্ঠানগুলোকে ভ্যাট মুক্ত রাখাসহ ৮ দফা দাবি জানিয়েছে উইমেন এন্ট্রাপ্রিনিয়ার্স নেটওয়ার্ক ফর ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েশনের (ওয়েন্ড)।

শনিবার (২ মার্চ) রাজধানীর পল্টনের ইকোনোমিক রিপোর্টার্স ফোরামের (ইআরএফ) মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে দাবিগুলো তুলে ধরেন সংগঠনের সভাপতি ড. নাদিয়া বিনতে আমিন।

তিনি বলেন, দেশের অর্থনীতিতে নারীদের অবদান ৩১ দশমিক ৬ শতাংশ। কিন্তু আমাদেরকে সরকারের পক্ষ থেকে সেভাবে সহয়োগিতা করা হচ্ছে না। নারী উদ্যোক্তাদের বিকাশ ও নারী উদ্যোক্তাবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করতে সরকারের কাছে এই ৮ দফা দাবি বাস্তবায়নে পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি করছি।

দাবিগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- নারী উদ্যোক্তাদের জন্য শহজ শর্ত ও কম সুদে ঋণ প্রদানের নীতিমালা প্রণয়ন। করপোরেট কর আগামী তিন বছরে ৫,৭ এবং ১০ শতাংশ কমানো, নারীদের জন্য বিশেষ প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট করা। আন্তর্জাতিক মেলাগুলোতে অংশগ্রহণে নারী উদ্যোক্তাদের বিশেষ সহযোগিতা করা। ইপিজেডে নারী উদ্যোক্তাদের বিশেষ প্লট বরাদ্দ দেওয়া।

ড. নাদিয়া বিনতে আমিন আরো বলেন, সরকার নারী উদ্যোক্তাদের জন্য সহজ শর্তে ও কম সুদে ঋণল প্রদানের নীতিমালা প্রণয়ন করলেও নারী উদ্যোক্তারা এ সুবিধা পাচ্ছেন না। ব্যাংক ঋণের ক্ষেত্রে পদ্ধতিগত জটিলতা নানাবিধ শর্তের বেড়াজাল ও উচ্চ সুদের কারণে প্রতিনিয়ত পুঁজি সংগ্রহে হিমশিম খাচ্ছে। এ বিষয়ে বিদ্যামান সরকারের নীতিমালা আরো সহজীকরণের মাধ্যমে তার কার্যকর বাস্তবায়ন দেখতে চায় নারী উদ্যোক্তারা। এ ছাড়া ব্যাংক ঋণের ক্ষেত্রে নারী উদ্যোক্তাদের জন্য বিদ্যমান গ্যারান্টি নীতিমালা পারিবর্তনেরও দাবি জানান তিনি।

তিনি বলেন, দেশের নারী উদ্যোক্তাদের সিংহবাগই ক্সুদ্র ও মাঝারি মানের। ফলে উচ্চ হারে ভ্যাট আরোপ করা হলে তারা প্রতিযোগিতামূলক বাজারে টিকে থাকতে পারবে না। তাই নতুন ভ্রাট আইনে তিনটি স্তরে সর্বোচ্চ পাঁচ শতাংশ হার নির্ধারণের সুপারিশ করছি। পাশাপাশি আয়করের ক্ষেত্রে নারীদের জন্য বর্তমানে প্রচলিত করমুক্ত আয় সীমা তিন লাখের পরিবর্তে পাঁচ লাখ টাকায় উন্নীত করতে হবে। তিনি দেশের প্রতিটি জেলায় নারী উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ দেওয়া ও ব্যবসায়িক কার্যঃকমে সহযোগিতা করার উদ্দেশ্যে প্রতি বিভাগে একটি করে সাপোর্ট সেন্টার করার দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক জিসান আাক্তার, সিনিয়র সহ-সভাপতি শামীমা লাইজু এবং সহ-সভাপতি আয়শা সিদ্দিকা, কোষাধ্যক্ষ আনোয়ারা সিদ্দিকা, কো-কোষাধক্ষ জর্জিনা আলম, সহ-সাধারণ সম্পাদক নাদিরা ইয়াসমিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।