সোলারি তবুও সম্মানের হার বলছেন

নিউজ ডেস্ক: রিয়াল মাদ্রিদের ঘরের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে এসে ৩-০ গোলের জয় তুলে নিয়েছে বার্সেলোনা। উঠে গেছে কোপা দেল রে’র ফাইনালে। তবে এই হারকেও সম্মানের বলে মনে করছেন রিয়াল কোচ সান্তিয়াগো সোলারি। তার ভাষ্যে, ‘আমরা হতাশ কারণ ফাইনাল খেলতে চেয়েছিলাম। খেলোয়াড়রা তাদের সেরাটা দিয়েছে। আমরা সম্মানের সঙ্গে হেরেছি।’ ম্যাচে বার্সার চেয়ে ভালো খেলেছে রিয়াল। বিশেষ করে প্রথমার্ধে। সেটাই সামনে আনলেন সোলারি।ম্যাচে মন জয় করা পারফর্ম দেখাতে পারেননি মেসি। মার্কার মতে, এভারেস মেসির বিপক্ষেও জয়হীন রিয়াল। ছবি: মার্কা
পুরো ম্যাচে রিয়ালের গোলের লক্ষ্যে চারটি শট নিয়েছে বার্সা। আর বার্সার গোলপোস্টে একাই পাঁচ শট নিয়েছেন ভিনিসিয়াস। রিয়াল কোচ তাই হারকে সম্মানের মনে করছেন। ওদিকে মার্কা বলছে ঘরের মাঠে রিয়াল মাদ্রিদ ‘এভারেজ মেসির’ সুবিধা নিতে পারেনি। চোট থেকে ওঠার পরে এখনও সেরা ফর্মে দেখা যায়নি মেসিকে। রিয়ালের বিপক্ষেও তিনি ছিলেন না চেনা ছন্দে। এরপরও রিয়ালের বড় হারকে এভাবে ব্যাখ্যা করছে ক্রীড়াভিত্তিক সংবাদ মাধ্যমটি।

ওদিকে রিয়াল অধিনায়ক সের্গিও রামোসের ম্যাচ চলাকালীন বক্তব্য সংবাদ মাধ্যমে ফলাওভাবে জায়গা পেয়েছে। বার্সেলোনা তখন সুয়ারেজের পেনাল্টি থেকে পাওয়া দ্বিতীয় গোলে ৩-০ ব্যবধানের লিড নিয়েছে। রামোস তখন সতীর্থদের বলেন, ‘তাদের ষষ্ঠ গোল করতে দিও না।’ মার্কার মতে রামোসের এই কথার অর্থ নাকি, শেষ বাঁশি পর্যন্ত লড়ে যাওয়ার টোটকা!সতীর্থদের লড়াইয়ের টোটকা দিচ্ছেন রামোস। ছবি: মার্কা
বার্সার বিপক্ষে চলতি মৌসুমের তিন ম্যাচেই জয়হীন রিয়াল। এক ম্যাচে আছে ১-১ গোলের সমতা। অন্য দুই ম্যাচে আট গোল খেয়ে হেরেছে রিয়াল। রোনালদোকে মিস করছেন? এমন প্রশ্নের জবাবে কাসেমিরো জানান, রোনালদোকে নিয়ে তিনি আলাপ করতে চান না। তিনি এখানে নেই। তিনি বললেন বেনজেমাকে নিয়ে, ‘ম্যাচে তৈরি করা সুযোগ নিতে না পারলে প্রতিপক্ষ ঘা মারবেই। তাই হয়েছে। সপ্তাহ খানেক আগেও বেনজেমা ছিলেন বিশ্বের সেরা নাম্বার নাইন।’ তার গোল না পাওয়াই হয়তো হারের কারণ মনে করছেন কাসেমিরো।

রিয়ালের মাঠ থেকে জিতে কোপার ফাইনালে উঠলেও খুশি নন বার্সেলোনা কোচ ভালভার্দে, ‘প্রথমার্ধে তারা ভালো খেলেছে। আমরা বিপজ্জনক জায়গায় বল হারিয়েছি। গোল খেয়ে এর সাজা ভোগ করতে হতো। আমরা তিনটি গোল খেয়েছি। কিন্তু বেশি সুযোগ তৈরি করতে পারিনি। এটা আমাদের সেরা পারফর্ম নয়।’