কমলগঞ্জে র‍্যাবের অভিযানে ফাঁসির দন্ডাদেশ প্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেপ্তার

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: জেলার কমলগঞ্জ উপজেলায় ফাঁসির দন্ডাদেশ প্রাপ্ত এক পলাতক আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৯।

সোমবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে উপজেলার পূর্ব জালাল পুর এলাকা থেকে আসামী চান মিয়া(৫০) কে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি ওই এলাকার বাদে উবাহাটা গ্রামের আবু আলীর ছেলে। 

র‍্যাব-৯ এর কোম্পানি অধিনায়ক ( সিপিসি-২) সহকারী পুলিশ সুপার ( এএসপি) মোঃ আনোয়ার হোসেন শামীম জানান, গ্রেপ্তারকৃত চান মিয়া তার নিজ ভাতুষ্পুত্র শিশু তাজুল ইসলাম (৮) হত্যা মামলার আসামী।
২০০৮ সালের ২৫ মার্চ সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ভাতিজা তাজুল ইসলামকে স্থানীয় মসজিদ থেকে ধরে নিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেন চান মিয়া। ঘটনাস্থলেই তাজুল মারা যায়। পারিবারিক জায়গাজমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এই নারকীয় হত্যাকান্ড সংঘটিত হয় মর্মে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়।

আদালত ও র‍্যাব সূত্র জানায়, এ ঘটনায় ওই দিনই তাজুল ইসলামের বাবা আলী আকবর বাদী হয়ে কমলগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ২০০৮ সালের ২৫ মে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কমলগঞ্জ থানার তৎকালীন উপ-পরিদর্শক রতন চন্দ্র দেবনাথ আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিল করেন। দীর্ঘ ৯ বছর পর সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে চান মিয়াকে দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে ফাঁসির আদেশ দেন আদালত।

৭ নভেম্বর, ২০১৭ মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম এ রায় দেন। রায়ে মৃত্যুদণ্ডের পাশাপাশি আসামিকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয় । শাস্তি এড়ানোর উদ্দেশ্যে এতদিন তিনি বিভিন্ন স্থানে আত্মগোপন করে ছিলেন বলেও র‍্যাব সূত্র জানায়।

এদিকে ফাঁসির দন্ডাদেশ প্রাপ্ত পলাতক আসামী চান মিয়াকে গ্রেপ্তার করায় র‍্যাব-৯ এর কোম্পানি অধিনায়ক ( সিপিসি-২) সহকারী পুলিশ সুপার ( এএসপি) মোঃ আনোয়ার হোসেন শামীমকে ধন্যবাদ জানিয়েছে কমলগঞ্জ উপজেলাবাসী।