ময়মনসিংহে ইজিবাইকের ভূয়া নম্বর প্লেট পেলেই ধ্বংস, ৬টি জব্দ, অভিযান চলবে

ময়মনসিংহ ব্যুরো : ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ইদানিং প্রতিদিন প্রায় ৫ হাজার ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক চলাচল করছে। প্রতিদিন নির্ধারিত আড়াই হাজার করে চলাচলের কথা থাকলেও ইাদনিং জাল ও ভূয়া নম্বর-প্লেটের ছড়াছড়ি। মহানগর এলাকায় ইদানিং ব্যাটারি চালিত ভূয়া, ডুপ্লিকেট ও জাল নম্বর-প্লেট এবং বই তৈরী করে কয়েক শত শত ইজি বাইক চলাচল করছে যা মহানগরের যানজটের মাত্রাকে আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। এ বিরুদ্ধে সিটি কর্পোরেশন ও ট্রাফিক পুলিশ গতকাল থেকে অভিযানে নেমেছে। অভিযানে ও তল্লাশীতে গতকাল ৬টি ভূয়া ও ডুপ্লিকেট নম্বর-প্লেট ও বইয়ের সন্ধান পাওয়া গেছে। এসব ভূয়া ও ডুপ্লিকেট নম্বর-প্লেট ও বইয়ের মালিকদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনী ব্যবস্থা এবং ইজিবাইকগুলোকে প্রকাশ্যে ধ্বংস করে দেয়া হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

 
ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক ইকরামূল হক টিটু জানান, এই মহানগরের যানজট নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য ইজিবাইক চলাচলের সুষ্ঠু নিয়ম করে ৫ হাজার প্লেট ছাড়া হয়েছে। তন্মধ্যে অর্ধেক আড়াই হাজার বেজোড় সংখ্যার ইজিবাইক ইংরেজী মাসের বেজোড় দিনে চলচল করবে এবং বাকি অর্ধেক আড়াউ হাজার জোড় সংখ্যার প্লেটধারী ইতিবাইক জোড় তারিখে চলাচল করবে। কিন্তু কিছু কুচক্রী মহল ও সিন্ডিকেট ভূয়া ও ডুপ্লিকেট নম্বর-প্লেট ও বই তৈরী করেছে এবং শত শত ইজি বাইক শহরে চলাচল করে যানজটের মাত্রাকে আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। যা আমাদের দৃষ্টিগোচর হলে ভূয়া প্লেটধারী ইজিবাইক চলাচল না করার জন্য কয়েকদিন মাইকিং করা হয়েছে। তথাপিও তা বন্ধ হয়নি এবং অবাধে চলাচল করছে। এখন অভিযান চলছে। জাল ও ভূয়া প্লেটধারী ইজিবাইক ধরা পড়লে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক ইকরামূল হক টিটু জানান।
ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোঃ আমিনুল ইসলাম জানান, গতকাল সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৬টি ভূয়া ও ডুপ্লিকেট নম্বর-প্লেট ও বই জব্দ করা হয়েছে। এগুলো কর্তৃপক্ষের অনুমতি স্বাপেক্ষে জনসন্মূখে ধ্বংস করা হবে এবং ভূয়া ও ডুপ্লিকেট নম্বর-প্লেট ও বইয়ের মালিকের বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে আশ্বাসা দেন সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসনিক। আটককৃত ইজিবাইকের জাল লাইসেন্সগুলো ৪৩২২ চালক নজরুল ইসলাম আজমতপুর, ২০২৬ চালক আনোয়ার কুমারাগাতা মুক্তাগাছা, ১১২৮ ও ১৪২২। এ সব লাইসেন্সের মালিক হলেন মাহবুব পিতা রুহুল আমিন, ১৬ নং ডিবি রোড ময়মনসিংহ এবং অপর লাইসেন্স নং ১২৫৪ এর চালক ওবায়দুল হক এবং লাইসেন্স এর মালিক নাজমূল কবির পিতা নুর মোহাম্মদ, সাং ৬, আকুয়া মড়লবাড়ি।
ইদানিং ভূয়া ও ডুপ্লিকেট নম্বর-প্লেট ও বই তৈরী করে কয়েক হাজার ইজি বাইক চলাচল করে ময়মনসিংহ শহরের যানজটের মাত্রাকে আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। অবিলম্বে ভূয়া ও ডুপ্লিকেট নম্বর-প্লেটধারী ইজিবাইক সনাক্ত করে তাদের আইনের আওতায় একেন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের জন্য সিটি কর্পোরেশনের কর্তৃপক্ষ এবং পুলিশ সুপারের প্রতি আহবান জানিয়েছেন ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার নূরুল আমিন কালাম । ভূয়া ও ডুপ্লিকেট নম্বর-প্লেট ও বইয়ের মালিকের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করায় সিটি কর্পোরেশনের কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান জেলা নাগরিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক। তিনি এ অভিযান অব্যাহত রাখারও আহবান জানান।