সংসদে না আসাটা ঐক্যফ্রন্টের রাজনৈতিক ভুল: প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক:  বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচিত এমপিদের সংসদে আসার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, তারা সংসদে না এসে ‘রাজনৈতিক ভুল’ করছেন।

বুধবার জাতীয় সংসদে এক প্রশ্নের জবাবে সংসদ নেতা শেখ হাসিনা প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক দলের এই ‘ভুলের’ বিষয়টি তুলে ধরেন।

ভোট ডাকাতির অভিযোগ তুলে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট থেকে নির্বাচিতরা এখনও সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেয়নি।

শেখ হাসিনা বলেন, “আমরা সকলের সম্মিলিতভাবে দেশটাকে গড়ে তুলতে চেয়েছি। এ জন্য নির্বাচনের আগে সকল দলকে ডেকেছিলাম। তাদের সঙ্গে সুন্দর পরিবেশে বৈঠক করেছি এবং নির্বাচন করার আমন্ত্রণ করেছিলাম।

‘১০ বছরের উন্নয়নের সুফল বাংলাদেশের মানুষ পেয়েছে বলেই বহু পূর্ব থেকে তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তারা আমাদের নৌকা মার্কায় ভোট দেবেন। জনগণ সেই ভোট দিয়েছেন।’

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেন, “যারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে অল্প সিট পেয়েছে, সেই অভিমান করে তারা পার্লামেন্টে আসছেন না, আমার মনে হয় রাজনৈতিক একটা ভুল সিদ্ধান্ত তারা নিয়েছেন। কারণ ভোটের মালিক জনগণ, তারা যাকে খুশি তাদের ভোট দেবেন এবং সেইভাবেই তারা ভোট দিয়েছেন।

‘যদি তারা সংসদে আসে আর তাদের যদি কোনো কথা থাকে, তা বলার একটা সুযোগ পাবেন। এই সুযোগ কেবল সংসদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে না। এখন সংসদের কার্যক্রম মিডিয়াতে সরাসরি যায়, সংসদ টেলিভিশনও আছে। এটার মাধ্যমে সারা দেশবাসী তাদের কথা শুনতে পাবেন।’

জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমামের প্রশ্নের জবাবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে সংসদে আসার আহ্বান জানিয়ে সরকার প্রধান বলেন, ‘এই সুযোগটা তারা কেন হারাচ্ছেন, আমি জানি না। তবে আহ্বান এটাই থাকবে যারা নির্বাচিত হয়েছেন, তারা সবাই পার্লামেন্টে আসবেন, বসবেন এবং যার যার কথা তারা বলবেন। সেই আহ্বান জানাচ্ছি।’

ফখরুল ইমাম টানা তৃতীয় মেয়াদে প্রধানমন্ত্রীর আসনে আসীন শেখ হাসিনার কাছে তার অবসরের পর গ্রামে চলে যাওয়ার বিষয়েও জানতে চান।

জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, ‘গ্রামটা হচ্ছে আমাদের প্রাণ। গ্রামের মানুষকে আমরা নাগরিক সুবিধা দিতে যাচ্ছি। একটু ভালো হলেই গ্রাম ছেড়ে শহরে চলে আসা, এটা আমার কোনোদিনই পছন্দের নয়। গ্রামে জন্মগ্রহণ করেছি। গ্রামে বড় হয়েছি। গ্রামের কাদামাটি মেখেই বড় হয়েছি। গাছে উঠে খালে ঝাঁপ দিয়েছি। খেলাধুলা করে গ্রামে বড় হয়েছি।