একদিনের সিরিজ জিতে ভারতের ইতিহাস সৃষ্টি

নিউজ ডেস্ক:   খরগোশের দৌড় নয়, মাহি এগিয়ে যাচ্ছেন কচ্ছপের পায়ে। বোঝালেন, শেষ ভালো যার সব ভালো তার। বিশ্বকাপের আগে তার একটা ছায়াযুদ্ধ ছিল। সে লড়াই জিতলেন। জেতালেন দলকে।

ইতিহাস সৃষ্টি করলো ভারত। অস্ট্রেলিয়ায় কখনো একদিনের সিরিজ জেতা হয়নি। এই প্রথমবার জিতে তাই নজির গড়ল বিরাট কোহালির দল। এর আগে টেস্ট সিরিজও জিতেছিল ভারত। যা আগে কখনো হয়নি।

মহেন্দ্র সিংহ ধোনির ব্যাটে ভর করে সিরিজ জিতল ভারত। বিরাট কোহালি ফেরার পর চতুর্থ উইকেটে কেদার যাদবের সঙ্গে তার জুটিই জয়ের লক্ষ্যে এগিয়ে নিয়ে গেলো দলকে। একদিনের সিরিজে টানা তিন ম্যাচে পঞ্চাশ করে ফেললেন তিনি।

১৭.৫ ওভারে দুই উইকেটে ভারত যখন ১০১, তখন ক্রিজে এসেছিলেন ধোনি। প্রথমে কোহালির সঙ্গে জুটিতে পঞ্চাশের বেশি রান, তারপর কেদার যাদবের সঙ্গে একশো রানের জুটিতে ভরসা দিলেন মাহি।

একদিনের সিরিজ জিততে দরকার ছিল ২৩১ রান। শেষ ওভারে চার বল বাকি থাকতে তিন উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে গেলো ভারত (৪৯.২ ওভারে ২৩৪-৩)। জয় এল সাত উইকেটে। ১১৪ বলে ধোনি অপরাজিত থাকলেন ৮৭ রানে। ৫৭ বলে কেদার যাদব অপরাজিত থাকলেন ৬১ রানে।

কিন্তু বিরাট কোহালিকে হারিয়ে ইনিংসের মাঝপথে চাপে পড়ে গিয়েছিল ভারত। ৬২ বলে ৪৬ রান করে ফিরলেন তিনি।রিচার্ডসনের বলে উইকেট কিপারকে খোঁচা দিয়ে ফিরলেন তিনি। ৩০ ওভারে ১১৩ রানে পড়ল ভারতের তৃতীয় উইকেট।

বিরাট কোহালির সঙ্গে ক্রিজে জুটি বাঁধলেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। অ্যাডিলেডে বিরাট-ধোনি জুটি ভারতকে জয়ের দিকে নিয়ে গিয়েছিল। মেলবোর্নেও ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীরা সেই আশা করছিলেন। দুইজনে তৃতীয় উইকেটে ৫৪ রান যোগ করলেন।

২৩০ রানে শেষ হলো অস্ট্রেলিয়া। ফলে, টেস্টের পর একদিনের সিরিজ জিতে নতুন ইতিহাস লেখার দারুণ সুযোগ বিরাট কোহালির দলের সামনে।