প্রধানমন্ত্রীর বিশ্বাসের মর্যাদা দিতে চাই : নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে বিশ্বাস রেখেছেন এর মর্যাদা দেবেন বলে মন্তব্য করেছেন খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

নিয়োগ পাওয়ার পর বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে প্রথম অফিসের দিন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘জানতে পারলাম মুক্তিযুদ্ধের পর বঙ্গবন্ধু দেশে ফিরে আসার পর এই মন্ত্রণালয়টি তার নিজের হাতে রেখেছিলেন। ভূ-রাজনীতির কথা চিন্তা করলে বন্দরগুলোর ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই বাংলাদেশের সার্বিক অর্থনৈতিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে নৌ মন্ত্রণালয় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশকে শেখ হাসিনা যে উচ্চতায় ও সম্মানের জায়গায় নিয়ে গেছেন এই সম্মান ধরে রাখতে নৌ মন্ত্রণালয়কে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে এবং করবে বলে আমি বিশ্বাস করি।’

নতুন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে এই দায়িত্ব দিয়েছেন। আমি তার প্রতি কৃতজ্ঞ। তিনি আমার প্রতি যে বিশ্বাস রেখেছেন আমি সেই বিশ্বাসের মর্যাদা দিতে চাই। এই মর্যাদা দেয়ার ক্ষেত্রে আপনাদের (মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী) সার্বিক সহযোগিতা আমার প্রয়োজন।’

আপনার লক্ষ্য কী থাকবে- জানতে চাইলে খালিদ মাহমুদ বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে আমরা উল্লেখ করেছি আমরা কী করতে চাই। সেগুলো বাস্তবায়ন করাই আমার লক্ষ্য।’

প্রধানমন্ত্রী নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যদের পারফরমেন্স দেখবেন- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সঠিক কথাই বলেছেন। নিশ্চয়ই তিনি যেহেতু মন্ত্রিসভার প্রধান তার সদস্যরা কীভাবে কাজ করছেন সেই বিষয়ে তিনি দৃষ্টি তো রাখবেনই। যেখানে আমাদের দুর্বলতা আছে, সবলতা আছে সবকিছুই তিনি চুলচেরা বিশ্লেষণ করবেন।’

আপনার চ্যালেঞ্জ কী- জানতে চাইলে বলেন, ‘যেখানে দেশরত্ন শেখ হাসিনা আমাদের প্রধান সেখানে আমাদের অনেক কিছুই হালকা হয়ে যায়। আমার বিশ্বাস তিনি যেভাবে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তার সঙ্গে কাজ করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করব। এবং আমি মনে করি তিনি যেভাবে বন্ধুত্বসুলভ দৃ্ষ্টিভঙ্গি নিয়ে, দেশপ্রেম নিয়ে, রাজনীতি শুধু নয়, দেশকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন আমরা আশা করি সফল হব।’

ব্লু ইকোনমি (সমুদ্র অর্থনীতি) নিয়ে তার চিন্ত কী- এ বিষয়ে নতুন নৌ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এটা তো বারবার বলা হচ্ছে। এটা নিয়ে তো আমাদের চিন্তাভাবনা আছে। পরবর্তী সময়ে এটা নিয়ে আপনাদের বিস্তারিতভাবে উপস্থাপন করব।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচনের সময় একটি কথা আমার বক্তব্যের মধ্যে বলেছিলাম। এবার সব রাজনৈতিক দল নির্বাচনে অংশ নিয়েছিল। সব দলের ভোটার ও সমর্থকদের কাছে আমি আবেদন করেছিলাম এই মুহূর্তে দেশে শেখ হাসিনার বিকল্প নেতৃত্ব কে আছে? এই মুহূর্তে শেখ হাসিনার বিকল্প নেতৃত্ব আমরা খুঁজে পাচ্ছি না।’

‘দেশকে, আমার অঞ্চল ও আমাকে যদি আমি ভালোবাসি তবে এই মুহূর্তে শেখ হাসিনার বিকল্প কেউ নেই। অতএব দল যার যার নৌকা সবার। আমরা দেখেছি এবার নির্বাচনে সেটাই হয়েছে’-বলেন দিনাজপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য খালিদ।

তিনি বলেন, ‘আমাদের ঘুরে দাঁড়ানোর এটাই সময়। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।’

খালিদ মাহমুদ আরও বলেন, ‘বিগত দুটি সময়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খান এই মন্ত্রণালয়ের নেতৃত্ব দিয়েছেন। আমি দৃশ্যমান দেখতে পাচ্ছি, এই মন্ত্রণালয়কে তিনি কতদূর এগিয়ে নিয়ে গেছেন। আমাদের সেই ধারাটা বজায় রাখতে হবে। আমি তাকে কৃতজ্ঞতা জানাই।’