মৃত ভেবে ফেলে রাখা শাহাব উদ্দিন এখন পূর্ণমন্ত্রী

এম শাহবান রশীদ চৌধুরী মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের বড়লেখা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান। সেই থেকে নানা ধাপ পেরিয়ে সোমবার পূর্ণ মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে যাচ্ছেন মৌলভীবাজার-১ আসনের সাংসদ শাহাব উদ্দিন। দশম সংসদে যদিনি হুইপের দায়িত্বে রয়েছেন। সৎ ও পরিচ্ছন্ন রাজনীতিক হিসেবে নিজ এলাকায় যার খ্যাতি রয়েছে।

রোববার মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ থেকে ফোন করে মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার কথা জানানো হয় শাহাব উদ্দিনকে। তিনি বন ও পরিবেশ মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব পাচ্ছেন।

১৯৮৪ সালে প্রথম মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন শাহাব উদ্দিন। ওই নির্বাচনের পর রাজনীতির মাঠে আর পেছন ফিরে থাকাতে হয়নি তাকে। একটানা ৩ বার ইউপি চেয়ারম্যান ছিলেন। চেয়ারম্যান থাকা অবস্থায় রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের হামলার মৃত্যুর খুব কাছ থেকে ফিরে আসেন তিনি। শত্রুরা থাকে মৃত ভেবে ফেলে যায়। গত ২২ ডিসেম্বর সিলেটের আলীয়া মাদ্রাসা মাঠে নির্বাচনী জনসভায় বক্তৃতাকালে সে হামলার কথা স্মৃতিচারণ করেন শেখ হাসিনাও।

১৯৯৬ সালের প্রথম বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়ে বিএনপির হেভিওয়েট প্রার্থী সাবেক প্রতিমন্ত্রী এবাদুর রহমানকে পরাজিত করে সাংসদ নির্বাচিত হন শাহাব উদদ্দিন। ২০০১ এর নির্বাচনে হেরে গেলেও ২০০৮ এ আবারো সাংসদ নির্বাচিত হন সে ধারাবাহিকতায় ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদে এবং একাদশ সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত হয়ে পরপর তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

নতুন মন্ত্রীসভায় বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাওয়া শাহাব উদ্দিন দশম সংসদের সরকারদলীয় হুইপের দায়িত্ব পালন করেন। তাঁর মন্ত্রী হওয়ার খবরে এলাকায় বইছে আনন্দের বন্যা। শাহাব উদ্দিনের মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার খবরে বড়লেখা-জুড়ী উপজেলার ১ পৌরসভাসহ ১৬টি ইউনিয়নের দলীয় নেতাকর্মীসহ সাধারণ জনগণের মাঝে দেখা দিয়েছে আনন্দ, উচ্ছ্বাস আর উল্লাস।

রবিবার (৬ জানুয়ারি) দুপুরে শাহাব উদ্দিন পূর্ণ মন্ত্রী হচ্ছেন এই খবরটি তাঁর নির্বাচনী এলাকায় প্রচার হয়। প্রথমবারের মত জেলার এই আসনে পূর্ণ মন্ত্রী পেয়ে উচ্ছ্বসিত নেতা-কর্মী থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ। দক্ষিণবাজার এলাকায় নেতা-কর্মীরা মিষ্টি বিতরণ করেন। এরপর পৌর শহরে আনন্দ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শহর প্রদক্ষিণ করে। এছাড়া বড়লেখা ও জুড়ী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় মিষ্টি বিতরণ ও মিছিল করার খবর পাওয়া গেছে।

নিজের এই অর্জনকে জেলার সবার উল্লেখ করে মো: শাহাব উদ্দিন বলেন, আমার উপর আস্থা রাখার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা। দ্বায়িত্ব পালনে আমি সবার সহযোগীতা চাই