ব্যর্থ নির্বাচন দেশকে বিপর্যয়ের পথে ঠেলে দেবে’

সিনিয়র রিপোর্টার: বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেছেন, ‘সারাদেশে বিরোধীদের ওপর পরিচালিত এ অভূতপূর্ব সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যকর পরিস্থিতিতে নির্বাচন নিয়ে গভীর অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছে। এ পরিস্থিতি বিরাজ করতে থাকলে ৩০ ডিসেম্বরের জাতীয় নির্বাচন ব্যর্থ হয়ে যেতে পারে। ব্যর্থ নির্বাচন দেশকে ভয়াবহ বিপর্যয়ের পথে ঠেলে দেবে।’

খুলনা, সাতক্ষীরা ও বাগেরহাটে নির্বাচনী সফর শেষে ঢাকায় ফিরে বুধবার বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতি দেখে এ আশঙ্কাই ক্রমে প্রবল হয়ে উঠছে যে, আগামী ৩০ ডিসেম্বর ২০১৪ সালে ৫ জানুয়ারির মতো রাজনীতিতে আর একটি কালো অধ্যায় মঞ্চস্থ হতে যাচ্ছে কি-না?’

তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের তিনদিন আগে ভোটারদের মনে উৎসাহের পরিবর্তে সীমাহীন আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। জনগণের জানমালের নিরাপত্তা নিয়েও গভীর আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। সেনা মোতায়েনের পর সার্বিক নিরাপত্তা পরিস্থিতি বিশেষ করে ভোটারদের মধ্যে যে আস্থা সৃষ্টির প্রত্যাশা ছিল এখন পর্যন্ত তা অর্জিত হয়নি। নানা মিথ্যা ও গায়েবি মামলার অজুহাতে বিরোধীদলীয় প্রার্থী, তাদের সংগঠক ও বাড়িতে পুলিশি হানা ও গ্রেফতার অব্যাহত রয়েছে। বিরোধীদলীয় গুরুত্বপূর্ণ সংগঠক ও কর্মীদের এলাকা ছেড়ে যেতে বলা হচ্ছে। নৌকায় ভোট না দিলে ভোটকেন্দ্রে না যেতে হুমকি দেয়া হচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে প্রার্থীরাই চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন।’

বিবৃতিতে এ শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতির অবসান ঘটাতে নির্বাচন কমিশনকে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট সবার ওপর নির্বাচন কমিশনের কার্যকর ও দৃশ্যমান নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা, সব সন্ত্রাসী হামলা বন্ধ এবং সর্বোপরি সেনাবাহিনীর কার্যকরী ভূমিকা নিশ্চিত করতে অবিলম্বে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানান তিনি। পাশাপাশি নবাবগঞ্জে গণমাধ্যম ও সাংবাদিকদের ওপর হামলাকারী চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও বিচার দাবি করেন সাইফুল হক।