মাশরাফি ও ফারুকের প্রার্থিতার বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন

নিউজ ডেস্ক: সাইফ শোভন

জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা ও চিত্রনায়ক ফারুকের প্রার্থিতার বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, নৌকা মার্কার প্রার্থী ক্রিকেটার মাশরাফি সরকারি বেতনভুক্ত। অথচ তিনিও বৈধ প্রার্থী। নৌকা মার্কার আরেক প্রার্থী চিত্রনায়ক ফারুক ঋণখেলাপি হয়েও প্রার্থী হয়েছেন। অসংখ্য দণ্ডিত ও ঋণখেলাপি নৌকা মার্কার প্রার্থী। আসলে ক্ষমতা হাতে থাকলে পাহাড়েও নৌকা ভাসানো যায়।

শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, জরিপের বরাত দিয়ে আওয়ামী লীগ দাবি করেছিল, তারা ২২০ আসন নিয়ে সরকার গঠন করবে। সেটা বাস্তবায়নের জন্যই ‘মাস্টারপ্ল্যান করে’ বিএনপি নেতাদের প্রার্থিতা বাতিল এবং প্রার্থীদেরকে গ্রেফতার করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ইসি কর্তৃক তালিকা চূড়ান্ত করার পর প্রার্থিতা বাতিল চরম প্রতারণামূলক। এর দায় ইসিকেই নিতে হবে।

জামায়াত অজুহাতে আরও ২২/২৩টি আসনের প্রার্থিতা বাতিল করার পরিকল্পনা

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আরও অভিযোগ করেন, জামায়াত নেতার অজুহাত দিয়ে ধানের শীষের আরও ২২/২৩টি আসনের প্রার্থিতা বাতিল করার পরিকল্পনা করছে সরকার।

আগামী ২৭ অথবা ২৮ ডিসেম্বরের মধ্যেই আওয়ামী লীগ বেশ কিছু আসনে তাদের জয় নিশ্চিত করবে বলে দাবি করেন রিজভী।

তিনি জানান, তফসিল ঘোষণার পর থেকে গত ১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত এজাহার বহির্ভূতভাবে ছয় হাজার ৬৭৫ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

উপজেলা চেয়ারম্যান পদে থেকে প্রার্থিতা ও ঋণখেলাপি হওয়ার অভিযোগে বিএনপির ১৬ প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিল করেছে হাইকোর্ট।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমদ আযম খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার, সহদফতর সম্পাদক মুনির খান প্রমুখ।

ঢাকানিউজ২৪.কম/এসএস