এইচআর প্রফেশনালদের একটি ব্যতিক্রমধর্মী প্লাটফর্ম গ্রীণ এইচআর

‘আমরা জীবনে প্রচুর সময় নষ্ট করছি ফেসবুক, ইউটিউব, টেলিভিশন এবং মোবাইলে। আর বলছি আমাদের হাতে সময় নেই। এসব কারণে আমাদের অভ্যাসগুলো দিন দিন নেতিবাচক হয়ে যাচ্ছে। আমরা চাইলে আমাদের সময়গুলো ইতিবাচক কাজে লাগাতে পারি। সেই ভাবনা থেকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের এইচআরদের নিয়ে আমরা গ্রীণ এইচআর শুরু করি’। এভাবেই উদ্যোগের শুরুর গল্প জানালেন গ্রীণ এইচআর-এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও ওয়ালটন গ্রুপের প্রশিক্ষণ ইনচার্জ রওশন আলী বুলবুল।

তিনি বলেন, গ্রীণ এইচআর প্রফেশনালস এর উদ্দেশ্য হচ্ছে দেশের প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানে গ্রীণ এইচআর এর গ্রাউন্ড তৈরি করা এছাড়াও নতুন নতুন আইডিয়া ও জ্ঞান আহোরণ করা এবং পেশাগত জীবনে দক্ষতা অর্জন করা। গ্রীণ এইচআর প্রফেশনালস মানুষকে শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষতা বাড়াতে কাজ করে। এ সংগঠনের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয় দুই বছর আগে। আমরা প্রতি মাসে একটা করে লানিং প্রোগ্রাম করি। এবং আমাদের পরবর্তী উদ্দেশ্য বড় বড় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে যুক্ত হওয়া কারন স্টুডেন্টরা যদি তাদের শিক্ষাজীবনে গ্রীণ এইচআর সম্পর্কে ধারণা পায় তাহলে কর্মজীবনের শুরুতেই তাদের প্রতিষ্ঠানে এটা কাজে লাগাতে পারবে।

এইচআরদের এই ব্যতিক্রমধর্মী প্ল্যাটফর্ম, সব পেশাজীবীদের যোগাযোগ তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে রওশন আলী বুলবুল মনে করেন। তিনি বলেন, ‘এই স্টাডি সার্কেলের মাধ্যমে নতুন নতুন অনেক কিছু শিখতে পারছে যা আমাদের সবার অফিসিয়াল ও পার্সোনেল লাইফে কাজে লাগবে’।

গ্রীণ এইচআর নিয়ে পরিকল্পনা জানতে চাইলে রওশন আলী বুলবুল বলেন, বর্তমানে গ্রীন এইচআর প্রতি মাসে একটি করে কর্মশালার আয়োজন করছে এবং ভবিষ্যতে আমাদের পরিকল্পনা হলো নতুন চাকরি প্রার্থীদের কাউন্সিলিং করে ক্যারিয়ার ডেভলপ করতে সহায়তা করা। সংগঠনটির মূখ্য উদ্দেশ্য প্রতিটি কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানে গ্রীন এইচআর প্রতিষ্ঠা করার জন্য কাজ করা যাতে মালিকপক্ষ ও চাকরিজীবী সবাই উপকৃত হয়। এছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক কাজেও এই সংগঠনটি নিয়মিত অংশগ্রহন করছে।

এফবিএইচআরও-এর সভাপতি ও আইসিডিডিআরবি-এর হেড অব এইচআর মোশারেফ হোসেন বলেন, ‘যেখানে সবাই পড়ালেখা থেকে বিমুখ হয়ে গেছে, সেখানে গ্রীণ এইচআর স্টাডি সার্কেল করছে। সদস্যদের জানার প্রতি আগ্রহী করে তুলছে। এটি সময় উপযোগী মহৎ উদ্যোগ বলেই আমি মনে করি’।
ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্ট (ইউল্যাব) এর ক্যারিয়ার ডিরেক্টর আবু রাসেল জানালেন, তিনি শিক্ষা ব্যবস্থার সাথে যুক্ত আছেন ১৮ বছর। নিজেদের অভিজ্ঞতা বিনিময় করতে তিনি যুক্ত হয়েছেন গ্রীণ এইচআর-এ। ইনট্রেড গ্রুপের এইচআর ও অ্যাডমিন ম্যানেজার একেএম মশিউর রহমান বলেন, ‘এই স্টাডি সার্কেলের মাধ্যমে আমি নতুন নতুন অনেক কিছু শিখছি যা আমার অফিসিয়াল ও পার্সোনেল লাইফে কাজে লাগবে’। আর আমি মনে করি গ্রীণ এইচআর বাংলাদেশে এইচআর এর ধারা পরিবর্তনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।