ঐক্যফ্রন্টের বিজয় শোভাযাত্রা, হামলা বন্ধের আহ্বান

নিউজ ডেস্কঃ   মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বিজয় শোভাযাত্রা করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। রবিবার পূর্বঘোষণা অনুযায়ী দুপুর পৌনে ১২টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে শোভাযাত্রাটি বের হয়। শান্তিনগর মোড় ঘুরে ফের নয়াপল্টনে এসে শেষ হয় এটি।

জাতীয় ঐকফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বিজয় শোভাযাত্রা উদ্বোধন করেন। এটি বিজয় শোভাযাত্রা হলেও নির্বাচনী প্রচারে রূপ নেয়।

শোভাযাত্রা শুরুর আগে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ৪৭তম এই বিজয় দিবসে আমাদের আনন্দিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আজকে আমরা অত্যন্ত ভারাক্রান্ত, আতঙ্কিত, উৎকণ্ঠিত। এই দেশে গণতন্ত্র টিকে থাকবে কি টিকে থাকবে না।

তিনি আরো বলেন, আমরা কখনো এ ধরনের নির্বাচন দেখিনি। নির্বাচনে সব রকমের পক্ষপাতিত্ব শুরু করেছে সরকার। নজিরবিহীনভাবে সরকার বিরোধী দলের নেতাকর্মী এমনকি প্রার্থীদেরও গ্রেপ্তার করছে। মিথ্যা মামলা দিচ্ছে।

এদিকে শোভাযাত্রা থেকে স্লোগান দেওয়া হয়, ‘মুক্তি মুক্তি মুক্তি চাই’, ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’, ‘আমার নেত্রী আমার মা, জেলে থাকতে দেব না’, ‘১৬ ডিসেম্বরের মার্কা কী?— ধানের শীষ’, ‘সারাদেশের মার্কা কী?— ধানের শীষ’, ইত্যাদি।

এ সময় একটা খোলা পিকআপ ভ্যানে ছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না, গণফোরামের সুব্রত বড়ুয়া, ঢাকা-১৩ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী আব্দুস সালাম, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, আইনবিষয়ক সম্পাদক সানাউল্লাহ মিয়া প্রমুখ। তাদের হাতে ছিল ধানের শীষ।

বিজয় দিবসের র‌্যালিকে বাধাগ্রস্ত করা হয়েছে দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, ঢাকায় অনেক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রতিদিন গ্রেফতার চলছে। প্রার্থীদের উপর হামলা করা হচ্ছে। এসময় হামলা- গ্রেফতার বন্ধের আহ্বান জানান তিনি।

এই নির্বাচনের সঙ্গে খালেদা জিয়ার মুক্তি নির্ভর করছে এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, আপনাদের ভোটেই সিদ্ধান্ত হবে আমাদের গণতন্ত্রের নেত্রী। আপোসহীন নেত্রী দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে এই অন্যায়-অত্যাচার থেকে মুক্ত করতে পারবো কি পারবো না।