দুর্নীতিবাজদের বয়কট করুন: প্রধান বিচারপতি

সিনিয়র রিপোর্টার: দুর্নীতিকে ‘না’ বলে ও দুর্নীতিবাজদেরকে সামাজিকভাবে বয়কটের মাধ্যমে দেশকে দুর্নীতিমুক্ত করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন।

রোববার আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকালা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা অডিটরিয়ামে ‘শিক্ষার্থী ও সততা সংঘের সমাবেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ আহ্বান জানান।

প্রধান বিচারপতি বলেন, দুর্নীতি একটি জাতীয় ব্যাধি। এটি সমাজে অর্থনৈতিক বৈষম্য সৃষ্টি করে ও সুষম রাষ্ট্রীয় উন্নয়ন ব্যাহত করে। জাতীয় এই সমস্যা প্রতিরোধ করার লক্ষ্যে দুদককে একটি বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে। এ প্রতিষ্ঠান সৃষ্টির ফলে ক্ষমতাবান দুর্নীতিবাজরা শঙ্কিত হয়ে পড়ে।

তিনি বলেন, আমাদের পূর্বপুরুষেরা অনেক ত্যাগ ও কষ্টের বিনিময়ে আমাদেরকে এই স্বাধীন বাংলাদেশ উপহার দিয়েছেন। কিন্তু আজ এই দুর্নীতি সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে প্রবেশ করে মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্ন ও চেতনাকে অবমাননা করছে। সমাজ হতে দূরে সরে যাচ্ছে আদর্শ ও নৈতিকতা। এই অবস্থার পরিবর্তন করতে এদেশের যুবসমাজ সবচেয়ে বড় শক্তি এবং অপার সম্ভাবনা। অদম্য আগ্রহ, সৃজনশীলতা এবং সুন্দর বাংলাদেশ গঠনের স্বপ্ন নিয়ে দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে তাদের সর্বাত্মক অংশগ্রহণ আজ সময়ের দাবি।

দুর্নীতি দমনের জন্য সামাজিক আন্দোলনের বিকল্প নেই এমন কথা উল্লেখ করে সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন, দুর্নীতিকে ‘না’ বলার প্রত্যয় দীপ্ত অঙ্গীকার নিয়ে সর্বাত্মক নৈতিকতা চর্চার সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলি। দুর্নীতি দমনের জন্য সামাজিক আন্দোলনের বিকল্প নেই। এজন্য প্রয়োজন গণসচেতনতা, দেশপ্রেম এবং তারুণ্যের অঙ্গীকার। তরুণ এবং যুবকদেরকে দুর্নীতি প্রতিরোধে এগিয়ে আসতে হবে। দেশের যুবসমাজ অসততা, অন্যায় ও দুর্নীতির বিরোধিতা শুরু করলেই কেউ কোনো অনিয়ম বা দুর্নীতি করার সাহস পাবে না।

আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ, কমিশনার (অনুসন্ধান) ড. মোজাম্মেল হক খান ও কমিশনার (অনুসন্ধান) এ এফ এম আমিনুল ইসলামসহ প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তা।