রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও ডোনাল্ড ট্রাম্পের বৈঠক

HELSINKI, FINLAND - JULY 16: U.S. President Donald Trump (L) and Russian President Vladimir Putin shake hands during a joint press conference after their summit on July 16, 2018 in Helsinki, Finland. The two leaders met one-on-one and discussed a range of issues including the 2016 U.S Election collusion. (Photo by Chris McGrath/Getty Images)

নিউজ ডেস্ক:  রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে ইউক্রেন পরিস্থিতির ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

আর্জেন্টিনায় জি-২০ সম্মেলনে মস্কোর আগ্রাসী পররাষ্ট্রনীতি নিয়ে পুতিন প্রচণ্ড চাপের মুখে পড়েন। এ অবস্থায় তিনি শুক্রবার সম্মেলনে নেত্রীবৃন্দের নৈশভোজকালে ট্রাম্পের কাছে ইউক্রেন পরিস্থিতি তুলে ধরেন।

পুতিন শনিবার সম্মেলন শেষে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি কৃষ্ণ সাগরের ঘটনা নিয়ে ট্রাম্পের প্রশ্নের জবাব দিয়েছি।’

গত সপ্তাহে কৃষ্ণ সাগরে রাশিয়ার নৌবাহিনী ইউক্রেনের তিনটি জাহাজ ও ২৪ জন নাবিককে আটক করে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুতিন জি-২০ সম্মেলনে ইউরোপ ও আমেরিকার তোপের মুখে পড়েন। কিয়েভের তরফে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পেট্রো পরোশেংকো এ চাপ বজায় রেখে বলেন, ‘সংকটের শুরু থেকেই প্রেসিডেন্ট পুতিন তার ফোন ধরতে অস্বীকার করেন।’

তিনি বলেন, ‘উত্তেজনা কমাতে আমরা আলোচনার জন্যে প্রস্তুত-ওই ঘটার সময়ে ক্রেমলিন নেতার সাথে ফোনে এ কথা বলার চেষ্টা আমি করেছি, কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত সরাসরি টেলিফোনে কথা বলার আমার অনুরোধে পুতিন এখনও পর্যন্ত সাড়া দেননি।’

কৃষ্ণ সাগরে ঘটে যাওয়া বিষয় নিয়ে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল এবং ফরাসী প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ পুতিনের সমালোচনা করেন এবং উত্তেজনা কমাতে তার প্রতি আহ্বান জানান।

এই দুই ইউরোপীয় দেশ ‘নরম্যান্ডি ফোর’ গ্রুপের সদস্য। অপর দুই সদস্য মস্কো ও কিয়েভ। মার্কেল বলেছেন, তিনি সংকট সমাধানে নরম্যান্ডি গ্রুপের বৈঠক চান।

জি ২০ সম্মেলন শেষে সংবাদ সম্মেলনে পুতিন আরো বলেন, সংকটের শান্তিপূর্ণ সমধানে ইউক্রেনের বর্তমান কর্তৃপক্ষের কোন আগ্রহ নেই।