জাতীয় রফতানি ট্রফি পেল ৫৬ প্রতিষ্ঠান

নিউজ ডেস্কঃ   রফতানি খাতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে জাতীয় রফতানি ট্রফি পেয়েছে ৫৬ প্রতিষ্ঠান। স্বর্ণ, রৌপ্য ও ব্রোঞ্জ এ তিন শ্রেনীতে গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের জন্য এ মর্যাদা পেল এসব প্রতিষ্ঠান। বিভিন্ন খাতে রফতানির পরিমাণসহ আরও সূচকের ভিত্তিতে জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ এ পদকের জন্য প্রতিষ্ঠানগুলো নির্বাচিত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচিত প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ট্রফি তুলে দেন। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। পদকের জন্য প্রধান ২৫ ধরনের পণ্যের রফতানি আয় ও প্রক্রিয়া বিবেচনায় নেওয়া হয়। এগুলো হলো তৈরি পোশাকের ওভেন ও নিট, সব ধরনের সুতা, বস্ত্র, হোম টেপটাইল, হিমায়িত খাদ্য, কাঁচা পাট, পাটজাত পণ্য, চামড়া, চামড়াজাত পণ্য, পাদুকা, চা, কৃষি পণ্য ও কৃষি প্রক্রিয়াজাত পণ্য, ফুল, হস্তশিল্প, মেলামাইন, প্লাস্টিক পণ্য, সিরামিকস, হালকা প্রকৌশল পণ্য, ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিকস পণ্য এবং ওষুধ।

স্বর্ণ পদক পেল ২৫ প্রতিষ্ঠান : সবচেয়ে বেশি রফতানি আয় করায় সেরা রফতানিকারক ট্রফি পেল জাবের অ্যান্ড জোবায়ের ফেব্রিপ। প্রতিষ্ঠানটি আলাদা করে স্বর্ণ পদক পেয়েছে। এছাড়া স্বর্ণপদক পাওয়া প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে হা-মীম গ্রুপের রিফাত গার্মেন্টস, স্কয়ার ফ্যাশনস, স্কয়ার টেপটাইল, স্কয়ার ফার্মা, এনভয় টেপটাইল, নোমান টেরিটাওয়েল, সী মার্ক বিডি, উত্তরা পাট সংস্থা, আকিজ জুট মিলস, পিকার্ড বাংলাদেশ, বে-ফুটওয়্যার, মনসুর জেনারেল ট্রেডিং, প্রমি এগ্রো ফুড, রাজধানী এন্ট্রাপ্রাইজ, কারুপণ্য রংপুর, আরএফএল গ্রুপের বঙ্গ প্লাস্টিক, শাইন পুকুর সিরামিকস, ইউনিগ্লোরী সাইকেল ইন্ডাস্ট্রিজ, মেরিন সেফটি সিস্টেম, সার্ভিস ইঞ্জিন, ইউনিভার্সেল জিন্স, আরএম ইন্টারলাইনিংস এবং মন ট্রিমস।

রৌপ্য পদক : রৌপ্য পদক পাওয়া ১৭ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে অনন্ত গার্মেন্টস, ফোর এইচ ফ্যাশনস, জোবায়ের স্পিনিং, প্যারামাউন্ট টেপটাইল, জালালাবাদ ফ্রোজেন ফুডস, জনতা জুট মিলস, আর এম এম লেদার, এফবি ফুটওয়্যার, হেরিটেজ এন্টারপ্রাইজ, স্কয়ার ফুডস অ্যান্ড বেভারেজ, ক্লাসিক্যাল হ্যান্ড মেইড বিডি, বেঙ্গল প্লাস্টিক, বিএসআরএম স্টিলস, ইনসেপ্টা ফার্মা, গ্রাফিক পিপল, প্যাসিফিক জিনস ও ইউনিগ্লোরি পেপার অ্যান্ড প্যাকেজিং।

ব্রোঞ্জ পদক : ব্রোঞ্জ পদক পাওয়া ১৪ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে হা-মীম গ্রুপের দ্যাটস ইট স্পোর্টস ওয়্যার, জিএমএস কম্পোজিট, জাবের স্পিনিং মিলস, নোমান টেপটাইল, কুলিয়ার চর সী ফুডস, রহমান জুট স্পিনার্স, লেদারেপ ফুটওয়্যার, আকিজ ফুটওয়্যার, সবজিআনা, কোর দি জুট ওয়ার্কস, ডিউরেবল পল্গাস্টিকস, বেপিমকো ফার্মা, জিন্স ২০০০ ও ডিবি টেপ।

রফতানি বাণিজ্যে উৎসাহ দেওয়া এবং সুষ্ঠু প্রতিযোগিতার পরিবেশ সৃষ্টির উদ্দেশ্যে বিভিন্ন খাতের এসব প্রতিষ্ঠানকে রফতানি পদক দেওয়া হয়। এ ক্ষেত্রে রফতানি আয়, আয়ের প্রবৃদ্ধি, নুতন পণ্য সংযোজন, নতুন বাজার ও পরিবেশসম্মত উৎপাদন পরিবেশকে বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। বাণিজ্য সচিবের নেতৃত্বে উচ্চ পর্যায়ের একটি কমিটি এসব সূচক বিশ্নেষণের মাধ্যমে জাতীয় রফতানি ট্রফির জন্য যোগ্য প্রতিষ্ঠানকে নির্বাচিত করে। ইপিবি, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড, (এনবিআর) বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা), এফবিসিসিআইসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসায়ী চেম্বারের প্রতিনিধিরা এ কমিটির সদস্য।