পরিচালকদের মুক্তিতে কাজে ফিরতে চায় ডেসটিনির বিনিয়োগকারীরা

সুমন দত্ত : রাষ্ট্রের দায়িত্বপ্রাপ্তদের অবহেলায় ডেসটিনির স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি নষ্ট ও বেহাত হচ্ছে। এ কারণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়ে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসাইন ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ রফিকুল আমিনের জামিনে মুক্তি চেয়ে সম্পত্তি রক্ষার ও নিজেদের কর্মসংস্থান ফিরে পাবার আবেদন  জানিয়েছে ডেসটিনির কিছু সংখ্যক বিনিয়োগকারী।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে সংবাদ সম্মেলন করে তারা এই আহবান জানায়। অনুষ্ঠানে বিনিয়োগকারীদের পক্ষে একটি বিবৃতি পড়ে শোনান শহীদুল ইসলাম নামের একজন ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী। তিনি বলেন, ডেসটিনি-২০০০ বন্ধ হয়ে যাবার কারণে আমাদের মত ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীরা মানবেতর জীবন যাপন করছে। আমরা যাদের ওপর ভরসা করে এই কোম্পানিতে বিনিয়োগ করেছিলাম তাদেরে অনেকে কারাবন্দী। অন্যরা পলাতক আছেন। আর যিনি জামিনে মুক্ত তার সঙ্গে আমরা যোগাযোগ করতে পারি না আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকার কারণে।

আর এদিকে আমাদের সম্পত্তি অযত্নে অবহেলায় পড়ে পড়ে নষ্ট হচ্ছে আর বেহাত হয়ে যাচ্ছে। কিছু কিছু সম্পত্তি প্রভাবশালী ভূমিদস্যূরা দখল করে নিচ্ছে। এদিকে যে অভিযোগে আমাদের পরিচালকদের গ্রেফতার করে রাখা হয়েছে আজ পর্যন্ত তার বিচার কাজ শুরু হলো না।

২০১৪ সালে পুলিশ ডেসটিনির বিরুদ্ধে চার্জশীট দেয়। ২০১৬ সাল পর্যন্ত মোট ২৬ বার ওই চার্জশিটের ওপর শুনানি হয়। তারপরও অভিযোগ আমলে নিয়ে বিচার শুরু করেনি আদালত। ডেসটিনির বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিংয়ের (অর্থ পাচার) যেসব অভিযোগ আনা হয়েছে সেগুলো অর্থ পাচার আইনে পড়ে না। যে কারণে আদালত বিচার্য বিষয় নির্ধারণ করতে পারছে না। অন্যদিকে কারাবন্দী পরিচালক মোহাম্মদ রফিকুল আমিনকে জামিন দিচ্ছে না আদালত। পরিচালকের অনুপস্থিতিতে বিভিন্ন সময়ে ডেসটিনি সম্পত্তি চুরি হয়ে যাচ্ছে , ডাকাতি হয়ে যাচ্ছে।  কোনো কোনো সম্পত্তি হয়েছে মাদক সেবনকারীদের অভয়ারণ্য।

এই অবস্থায় ডেসটিনির বিনিয়োগকারীরা পরিচালকদের জামিনে মুক্তি চেয়ে প্রতিষ্ঠানটির সহায় সম্পত্তি ফিরে পেতে চায়। পাশাপাশি নিজেদের কর্ম সংস্থান ফিরে পেতে চায়।

সারা দেশে ডেসটিনির ৪৫ লক্ষ ডিস্ট্রিবিউটর আছে। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) দেয়া তথ্য অনুসারে ডেসটিনির ৪০১ একর জমি ও ৯৯ হাজার বর্গফুট বাণিজ্যিক/আবাসিক এপার্টমেন্ট, বৃক্ষরোপণ উপযোগী ৮৩৫ একর পাহাড়ি ও উপকূলীয় জমি। যার আনুমানিক বাজার মূল্য ৫ হাজার কোটি টাকা।

ঢাকানিউজ২৪ডটকম