আয়কর মেলায় রেকর্ড আড়াই হাজার কোটি টাকা আদায়

সিনিয়র রিাপোর্টার : অভূতপূর্ব সাড়া, রেকর্ডসংখ্যক উপস্থিতি, আঘুনিক সেবা প্রদানে আয়কর আহরণের মধ্য দিয়ে শেষ হলো সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলা। গতকাল জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) আয়োজিত নবম মেলা শেষ হয়। ঢাকাসহ সারা দেশে এবার মেলায় প্রায় দুই হাজার ৪৬৮ কোটি ৯৪ লাখ ৪০ হাজার ৮৯৫ টাকার রাজস্ব আদায় হয়েছে, যা গত বছরের মেলার চেয়ে প্রায় ২৬১ কোটি টাকা বেশি। এবার মেলায় আয়কর আহরণের প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১১ দশমিক ৩৫ শতাংশ।

এছাড়া রিটার্ন দাখিল করেছেন চার লাখ ৮৭ হাজার ৫৭৩ করদাতা। রিটার্ন গত বছরের চেয়ে প্রায় এক লাখ ৫২ হাজার ৪৮টি বেশি পড়েছে। রিটার্ন দাখিল প্রবৃদ্ধি ৪৫ দশমিক ৩৩ শতাংশ। সেবা নিয়েছে প্রায় ১৬ লাখ ৩৬ হাজার ২৬৬ জন, যা গত বছরের চেয়ে প্রায় চার লাখ ৬৬ হাজার ৬৯৭ জন বেশি। এছাড়া নতুন ই-টিআইএন নিবন্ধন নিয়েছেন ৩৯ হাজার ৭৪৩ জন, যা গত বছরের চেয়ে ১০ হাজার ৪৮৯টি বেশি।
১৩ থেকে ১৯ নভেম্বর রাজধানী ঢাকাসহ সব বিভাগীয় শহরে সাত দিন, ৫৬টি জেলা শহরে চার দিন, ৩২টি উপজেলায় দুই দিন এবং ৭০টি উপজেলায়ে এক দিনব্যাপী আয়কর মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কর আহরণের পাশাপাশি সামাজিক ন্যায়বিচার ও সমতা নিশ্চিত করাই কর বিভাগের প্রধান কাজ। এ ধারাবাহিকতায় ‘উন্নয়ন ও উত্তরণ, আয়করের অর্জন’ সেগানকে সামনে রেখে এ বছর আয়কর মেলার প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয় ‘আয়কর প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে সামাজিক ন্যায়বিচার ও ধারাবাহিক উন্নয়ন নিশ্চিতকরণ’।
১৩ নভেম্বর রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে মেলার উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। গতকাল মেলার শেষদিন একই স্থানে মেলার সমাপ্তি ঘোষণা করেন তিনি। গতকাল মেলার শেষদিন রাজধানীসহ সারা দেশে ৪৫টি স্পটে মেলা অনুষ্ঠিত হয়। শেষদিন সেবা নিতে করদাতাদের উপস্থিতি ছিল লক্ষণীয়। শেষদিন করদাতা থাকা পর্যন্ত মেলায় সেবা দেওয়া হয়। আয়কর মেলা শেষ হলেও আগামী ২২ থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত সব কর অফিসে মেলার পরিবেশে মেলার মতোই সব কর সেবা প্রদান এবং করদাতারা রিটার্ন দাখিল করতে পারবেন।
এ বছর আয়কর মেলয় বিশেষ আকর্ষণ ছিল অনলাইন আয়কর রিটার্ন দাখিল। সারা দেশে তিন হাজার ৭৭০ করদাতা রিটার্ন দাখিল ও ই-পেমেন্টের মাধ্যমে এক হাজার ১৬০ করদাতা এক কোটি ৪৮ হাজার ৬৮৫ টাকা আয়কর প্রদান করেছেন। এছাড়া তৃতীয়বারের মতো মেলায় কর শিক্ষণ ফোরামে অভূতপূর্ব সাড়া পড়েছে। ভবিষ্যৎ করদাতা সৃষ্টি ও শিক্ষার্থীদের কর বিষয়ে সচেতন করার লক্ষ্যে মেলায় তৃতীয়বারের মতো সংযোজিত হওয়া কর শিক্ষণ ফোরামের আওতায় শিক্ষার্থীরা প্রতিদিন মেলা পরিদর্শন, কর বিষয়ে ধারণা লাভ ও কুইজ প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। এতে শিক্ষার্থীরা ভবিষ্যতের যোগ্য নাগরিক হওয়া ও নেতৃত্ব লাভের শিক্ষা নেন। কর শিক্ষণ ফোরামে এবার ঐতিহ্যবাহী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজসহ রাজধানীর খ্যাতনামা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন। শিক্ষার্থীরা মেলা পরিদর্শন এবং কর বিষয়ে জ্ঞানলাভ করেন। পরে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় প্রতিদিন ১০ জন করে শিক্ষার্থীকে সনদপত্র, পুরস্কার ও প্রাইজবন্ড প্রদান করা হয়। অংশগ্রহণকারী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকেও সনদপত্র প্রদান করা হয়। মেলার শেষ দিন নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।
মেলা সচিবালয় সূত্র জানায়, এনবিআর ২০১০ সালে মেলার আয়োজন করে। সে বছর মাত্র ১১৩ কোটি টাকার আয়কর আদায় হয়। সেবা নেন প্রায় ৬০ হাজার করদাতা। রিটার্ন দাখিল হয় ৫২ হাজার ৫৪৪টি। ২০১১ সালে আয়কর আদায় হয় ৪১৪ কোটি টাকা, ২০১২ সালে ৮৩১ কোটি টাকা, ২০১৩ সালে এক হাজার ১১৭ কোটি টাকা, ২০১৪ সালে এক হাজার ৬৭৫ কোটি টাকা, ২০১৫ সালে দুই হাজার ৩৫ কোটি