সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত ঘোষণা করলেন শেখ হাসিনা

নিউজ ডেস্ক:  বিশ্বের সর্ববৃহৎ ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবনকে ‘দস্যুমুক্ত’ ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার সকালে বাগেরহাটের শেখ হেলাল উদ্দিন স্টেডিয়ামে দুস্যুদের ছয় বাহিনীর ৫৪ জন আত্মসমর্পণ করে। এসময় ঢাকায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এর আগে র‍্যাবের প্রচেষ্টায় অনেক বনদস্যু আত্মসমর্পণ করেছে। আমি এ মুহূর্তে সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত ঘোষণা করলাম। এর ফলে পর্যটক ও জেলেরা নির্বিঘ্নে সুন্দরবনে চলাচল করতে পারবেন। আত্মসমর্পণ করা বনদস্যুরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার পর তাদের পুনর্বাসনের উদ্যোগ নেওয়া হবে।

এদিকে সুন্দরবন সুরক্ষায় নানামুখী উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এখন থেকে বনে সম্পদ আহরণের নামে জীববৈচিত্র্য ও গাছপালা কেটে ফেলা যাবে না। একই সঙ্গে বন বিভাগের যে নীতিমালা রয়েছে, তা দিয়ে সুন্দরবন রক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না। কারণ, সুন্দরবন ও অন্য বনের প্রকৃতি সম্পূর্ণ ভিন্ন। এ জন্য সুন্দরবন সংরক্ষণে আলাদা নীতিমালা প্রণয়নের চিন্তাভাবনা করছে সরকার। সুন্দরবনের ওপর নির্ভরশীল জনগোষ্ঠীর জন্য বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থাও নেবে সরকার।

দেশি-বিদেশি পর্যটকরা যাতে নির্বিঘ্নে সুন্দরবনের নৈসর্গিক দৃশ্য দেখতে পারেন সে জন্য নিরাপত্তায় কড়াকড়ি করতে সংশ্নিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ‘সুন্দরবন সুরক্ষাবিষয়ক’ উচ্চ পর্যায়ের এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় এমন নির্দেশনা ও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।