বিক্রমাসিংহই শ্রীলংকার বৈধ প্রধানমন্ত্রী : স্পিকার

নিউজ ডেস্ক:  শ্রীলংকায় পার্লামেন্টের স্পিকার বরখাস্তকৃত প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহকে বৈধ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন। বিক্রমাসিংহকে বরখাস্তের তিনদিন পর রোববার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনার কাছে পাঠানো এক চিঠিতে তিনি এ কথা বলেন।

প্রেসিডেন্ট শুক্রবার বিক্রমাসিংহকে বরখাস্ত করেন। আকস্মিক বরখাস্তের পর পরই বিক্রমাসিংহ একে অবৈধ হিসেবে উল্লেখ করেন। এছাড়া সরকারি বাসভবন ছাড়তে তাকে রোববার পর্যন্ত যে সময়সীমা বেঁধে দেয়া হয়েছে তাও তিনি উপেক্ষা করেন। বরং তিনি সমর্থন যোগাতে সংকট নিয়ে মিত্রদের সাথে বৈঠক করছেন। খবর এএফপি’র।

স্পিকার কারু জয়সুরিয়া বলেন, পার্লামেন্টে অপর কোন প্রার্থীর সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ না করা পর্যন্ত নিরাপত্তা বজায় রাখার এবং প্রধানমন্ত্রীকে সুযোগ দেয়ার যে অনুরোধ করা হয়েছে তা যথাযথ।
তিনি আরো বলেন, ‘আমি মনে করি অনুরোধ গণতান্ত্রিক ও যথাযথ।’

একই সঙ্গে তিনি প্রেসিডেন্টকে সতর্ক করে বলেন, প্রায় তিন সপ্তাহের জন্যে পার্লামেন্ট বন্ধ রাখলে রাজনৈতিক সংকট আরো ঘনীভূত হবে।

এদিকে বিক্রমাসিংহকে বরখাস্তের পর পরই সিরিসেনা তার সাবেক প্রতিদ্বন্দ্বী মাহিন্দা রাজাপাকসেকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ এবং পার্লামেন্ট প্রায় তিন সপ্তাহের জন্যে স্থগিত ঘোষণা করেন। কারণ, কেউ যাতে তার নিয়োগকে চ্যালেঞ্জ জানাতে না পারে। এছাড়া তিনি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বিক্রমাসিংহের নিরাপত্তা ও সরকারি গাড়ি প্রত্যাহারের নির্দেশ দেন।

এর আগে বরখাস্তের পর পরই বিক্রমাসিংহে তার সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের জন্যে পার্লামেন্টের জরুরি বৈঠক ডাকতে স্পিকারকে অনুরোধ জানিয়েছিলেন।

এ প্রেক্ষাপটে প্রেসিডেন্ট পার্লামেন্ট অধিবেশন আগামী ১৬ নভেম্বর পর্যন্ত মূলতবি করেন। তবে স্পিকার বলছেন, অধিবেশন মূলতবির বিষয়ে প্রেসিডেন্ট তার সঙ্গে আলোচনা করতে ব্যর্থ হয়েছেন।

এদিকে রাজাপাকসে রোববার অথবা সোমবার নাগাদ নতুন মন্ত্রীসভা ঘোষণা করতে যাচ্ছেন। তার কার্যালয় এ কথা জানিয়ে বলেছে, এ কারণে তিনি রোববার দেশটির শীর্ষ বৌদ্ধ মন্দিরে প্রার্থণাও করেন।