আন্তর্জাতিক গ্রামীণ নারী দিবসের কর্মসূচি ঘোষণা

সুমন দত্ত: আন্তর্জাতিক গ্রামীণ নারী দিবসের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে, Women’s World Summit Foundation (WWSF) বাংলাদেশের প্রতিনিধিরা।

রবিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউন্সে গ্রামীন নারীদের অধিকারের পক্ষে বক্তব্য রাখেন, সংগঠনের প্রতিনিধিরা। 

এবারের আন্তর্জাতিক গ্রামীন নারী দিবসের শ্লোগান- ‘পারিবারিক আয়ে নারী অধিকার ভিত্তিক ন্যায্যতা নিশ্চিত কর।’ 

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা আন্তর্জাতিক নারী দিবস ও আন্তর্জাতিক গ্রামীন নারী দিবস সম্পর্কে যে পার্থক্য রয়েছে তা বোঝানোর চেষ্টা করেন। ১৫ অক্টোবর হয় আন্তর্জাতিক গ্রামীন নারী দিবস। ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস। ২০০৭ সালে আন্তর্জাতিক গ্রামীন নারী দিবস বিশেষ স্বীকৃতি লাভ করে। এই স্বীকৃতি জাতিসংঘ ২০০৭ সালের ১৮ ডিসেম্বর সাধারণ পরিষদের এক সভায় দেয়া হয়। জাতিসংঘের কাছে জেনেভা ভিত্তিক একটি আন্তার্জতিক সংস্থা Women’s World Summit Foundation (WWSF) এ দাবি করেছিল। 

বাংলাদেশে গ্রামীন নারীরা বহু অধিকার থেকে বঞ্চিত। তাদেরকে গ্রামীন এলাকায় কাজ করতে দেওয়া হয় না। অথচ তাদের সেখানে কাজ করার বহু সুযোগ আছে। এই সুযোগ পেলে তারা দেশের উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রাখতে পারতো। নারীরা না পায় গৃহস্থালি কাজের মর্যাদা, না পায় কৃষিখাতে প্রদেয় শ্রমের মর্যাদা। নারীদের শ্রম মূলত গ্রামীন কৃষি অর্থনীতিতে পরিবারের আয়ের উৎস হিসেবে বিবেচনা করা হয় না। বরং ফসল উৎপাদনে সামগ্রীক ব্যয় হ্রাসের উৎস হিসেবে তা পরিগণিত হয়। 

আন্তর্জাতিক গ্রামীন নারী দিবসে সেই সকল নারীদের অধিকারের কথা বলে থাকে। এবার পারিবারিক আয়ে নারীদের অধিকার ভিত্তিক ন্যায্যতা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়ে সারা দেশে জেলা ভিত্তিক এই কর্মসূচি পালনের উদ্যোগ নিয়েছে।

ঢাকানিউজ২৪ডটকম/প্রিন্স