পূজার আয়োজনে চাল বরাদ্দ

ফুলবাড়ী, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলায় এ বছর ৭৩ টি মন্ডপে দূর্গা পুজার আয়োজন বরা হচ্ছে। ১৫ থেকে ১৯ অক্টোবর পালিত হবে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় এ দূর্গোৎসব। অনেক পূজা মন্ডপে প্রতিমা তৈরির কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে। কোথাও কোথাও চলছে রঙ করার কাজ। আবার কোথাও চলছে দেবীকে অলংকরণের কাজ।

পূজা মন্ডপগুলোতে নারী ও পুরুষ দর্শনার্থীদের জন্য করা হচ্ছে আলাদা আলাদা প্রবেশপথ ও বসার জায়গা। উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় পুজা মন্ডপের সভাপতি ভারত চন্দ্র রায় জানান, দেবী এবার ঘোটকে (ঘোড়া) চড়ে আসবেন। উৎসবের প্রস্তুতি প্রায় শেষ। আমরা সাড়ম্বরে এবারের পূজা উদ্যাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছি। এটি হিন্দুদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান হলেও এই উৎসবে সকল ধর্মের মানুষ অংশগ্রহণ করে। তাই উৎসবের সফল সমাপ্তির জন্য তিনি সবার সহযোগিতা কামনা করেন। দূর্গোৎসবকে নির্বিঘ্ন করার লক্ষ্যে উপজেলা প্রশাসন সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাছুমা আরেফিন জানান, বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী প্রতিটি মন্ডপে প্রয়োজনীয় সংখ্যক পুলিশ, আনসার ও গ্রাম পুলিশ নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবেন। সার্বিক পরিস্থিতি তদারকির জন্য মোবাইল টিম কাজ করবে।

যে কোন ধরণের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়ানোর জন্য থাকবে তদন্ত কমিটি। সফল ভাবে পূজা আয়োজনের জন্য প্রতিটি পূজা মন্ডপে সরকার ৫শ‘ কেজি করে চাল বরাদ্দ দিচ্ছে বলে জানান তিনি। ফুলবাড়ী থানার ওসি খন্দকার ফুয়াদ রুহানী জানান, ঝুঁকিপূর্ণ পূজা মন্ডপগুলোতে মেটাল ডিটেক্টর ব্যবহার করবে পুলিশ প্রশাসন। মাদক ও জুয়ার আসর কেউ যেন বসাতে না পারে সে ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে থাকবে পুলিশ। পূজার সময় অপরিচিত ও সন্দেহভাজন কাউকে দেখলে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে জানানোর জন্য বলেন তিনি।

ঢাকানিউজ২৪ডটকম/প্রিন্স