বোয়াল মাছের সাজা কমে পুঁটি মাছের বেশী হল: আহতের প্রতিক্রিয়া

সুমন দত্ত: ভয়াবহ ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় মামলার রায়ে পুরোপুরি সন্তুষ্ট হতে পারেনি আহতের পরিবার। 

বুধবার নাজিমুদ্দিন রোডস্থ পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলগেটে দাঁড়িয়ে ওই ঘটনায় আহত সম্রাট আকবর সবুজ উপস্থিত গণমাধ্যমকে এ কথা জানান। এ সময় সবুজের মা মাহমুদা মনোয়ারা তার পাশে ছিলেন। 

সবুজ বলেন, এ রায়ে বোয়াল মাছকে লঘু-দণ্ড দিয়ে পুঁটি মাছকে সর্বোচ্চ সাজা দেওয়া হয়েছে। এ রায়ের বিরোদ্ধে তিনি বাদী হয়ে আপিল করবেন বলে জানান। 

তিনি আরো বলেন, দেশবাসী আশা করেছিলো খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক জিয়ার ফাঁসির রায় হবে। তা এ রায়ে দেখা গেল না। তাই  আজ নিহত ও আহতের পরিবার গুলো পুরোপুরি সন্তুষ্ট হতে পারেনি। তার মা মাহমুদা মনোয়ারা বলেন, আমার ছেলের পুরোটা জীবন নষ্ট হয়ে গেলো ওই ঘটনায়। আমি চাই এই মামলায় খালেদা জিয়াকে আসামী করে সাজা দেওয়া হোক। কিন্তু সেটা হয়নি। সরকারের কাছে আমার আবেদন খালেদা জিয়াকে এই মামলার আসামী করা হোক।

প্রসঙ্গত, ২০০৪সালের ২১শে আগস্ট আওয়ামী লীগের প্রধান কার্যালয়ের সামনে গ্রেনেড হামলায় ২৪ জন নিহত হয় ও শতাধিক আহত হয। এই মামলায় ৪৯ জনকে আসামী করে অভিযোগ পত্র দেওয়া হয়। ঘটনার ১৪ বছর পর মামলার রায় ঘোষণা করা হয়। যেখানে তারেক জিয়া হারিছ চৌধুরীসহ বিশ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। অন্যদিকে সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর ও আব্দুস সালাম পিন্টুসহ ১৯জনকে মৃত্যুদন্ড দেওয়া হয়। 

ঢাকানিউজ২৪ডটকম/প্রিন্স