সৌদি সাংবাদিক নিখোঁজের ঘটনায় ট্রাম্পের উদ্বেগ

নিউজ ডেস্ক: সৌদি আরব সরকারের সমালোচক হিসেবে পরিচিত সাংবাদিক জামাল কাসোগ্গি নিখোঁজের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত সপ্তাহে ইস্তাম্বুলে সৌদি কনসুলেট অফিসে প্রবেশ করার পর থেকেই তার আর খোঁজ মেলেনি। তুরস্ক দাবি করছে সৌদি কনসুলেট অফিসে ওই সাংবাদিককে খুন করা হয়েছে।

এই ঘটনায় হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, আমি উদ্বিগ্ন। ‍আমি এ ধরনের সংবাদ শুনতে চাই না। আশা করছি এ বিষয়ে সত্যিটা বেরিয়ে আসবে। এখন কেউই এ বিষয়ে জানে না। এ নিয়ে বেশ কিছু অস্বস্তিকর সংবাদ ঘুরে বেড়াচ্ছে, যা আমি পছন্দ করি না।

কাশোগি যুক্তরাষ্ট্রের একজন নাগরিক। গত বছর তিনি সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে নিয়ে কিছু সমালোচনামূলক প্রবন্ধ লিখেছেন। একজন তুর্কি নারীকে তিনি বিয়ের পরিকল্পনা করছিলেন। এ অবস্থায় গত ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলে সৌদি কনসুলেট অফিসে প্রবেশের পর তার কোনও খোঁজ মেলেনি।

তুরস্ক দাবি করছে কনসুলেট অফিসেই ওই সাংবাদিককে খুন করা হয়েছে। তবে রিয়াদ এই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, সে নিজেই ওই এলাকা ত্যাগ করে গেছে।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স একই বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন। তিনি বলেন, সৌদি সাংবাদিক জামালা কাশোগ্গির বিষয়ে যা শুনা যাচ্ছে তা সত্যি উদ্বেগের। যদি ঘটনা সত্যি হয় তবে এটি অবশ্যই একটা বিয়োগাত্মক দিন। বিশ্বব্যাপী সাম্প্রতিক সময়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে যেসব ঘটনা ঘটছে তা গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও মানবাধিকারের জন্য হুমকিস্বরূপ। মুক্ত বিশ্ব এসব প্রশ্নের উত্তর দাবি করে।

সৌদি সরকারের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রশাসন। তবে সম্প্রতি ‘আমাদের সমর্থন ছাড়া আপনারা দুই সপ্তাহও টিকতে পারবেন না’ সৌদি সরকারকে উদ্দেশ্য করে ট্রাম্পের এমন বক্তব্য বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছে। সেই আলোচনা-সমালোচনার মধ্যেই সৌদি সাংবাদিক নিখোঁজের বিষয়ে ট্রাম্পের পক্ষ থেকে এই বক্তব্য আসল।