কিশোরগঞ্জে রাষ্ট্রপতির গণসংবর্ধনা

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা: ভাটির সার্দুল হিসেবে খ্যাত সাত বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য মাটি ও মানুষের নেতা বাংলাদেশের দুই বারের মহামান্য রাষ্ট্রপতি এডভোকেট মো: আব্দুল হামিদের সম্মানে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় আজ সোমবার বেলা ৩ টায় কিশোরগঞ্জে এক গণ সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়েছে। প্রাণের মানুষ, প্রিয় মানুষ ও সকলের অতি কাছের মানুষ এডভোকেট মো: আব্দুল হামিদ।

ভাটি বাংলার তৃণমূলের রাজনীতি থেকে ওঠে আসা বিচক্ষন মেধাবী ও ত্যাগী এই রাজনীতিবিদ বাংলাদেশের বিজ্ঞ অভিভাবক হিসেবে দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে অনন্য ইতিহাস সৃষ্টি করায় তাঁকে দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য আবারো বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতির আসনে অধিষ্টিত করা হয়েছে। দ্বিতীয় মেয়াদে রাষ্ট্রপতির আসন অলংকৃত করার পর আজ কিশোরগঞ্জের সর্বস্থরের মানুষের পক্ষ থেকে আয়োজন করা হয়েছে বিশাল গণ সংবর্ধনার। যে গণ সংবর্ধনা কিশোরগঞ্জের ইতিহাসে এক মাইল ফলক হয়ে থাকবে।

প্রবীন এই রাজনীতিবিদ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের অনুসারী ও একনিষ্ঠ কর্মী থেকে তাঁর রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ও একজন সাদা মনের মানুষ হিসেবে বাংলাদেশের সকল মানুষের সকল দলের প্রিয় ব্যক্তি হিসেবে দুই বার রাষ্ট্রপতির আসনে অধিষ্টিত হয়েছেন।

কিশোরগঞ্জের প্রাণের মানুষ ও প্রিয় মানুষ রাষ্ট্রপতি এডভোকেট মো: আব্দুল হামিদের সম্মানে ও তাঁকে গভীর শ্রদ্ধা ও ভালবাসার মাধ্যমে গণসংবর্ধনার আয়োজন করায় আয়োজনকারীদের এবং আয়োজকদের আহবানে সারা দিয়ে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার জন্য রাষ্ট্রপতিকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সকালে বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রথম প্রতিবাদকারীদের অন্যতম, ঢাকা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও বৃহত্তর ময়মনসিংহ আইনজীবী কল্যাণ সমিতির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট মো: সাইদুর রহমান মানিক ও কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক পিপি এডভোকেট শাহ আজিজুল হক। তৎকালীন গণমানুষের নেতা আব্দুল হামিদের স্নেহ ভালবাসা নিয়ে তাঁর ছত্রছায়ায় বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রথম প্রতিবাদের পর সাইদুর রহমান মানিক ছদ্দবেশ ধারন করে আত্মগোপন করে থাকেন দেশের বিভিন্ন স্থানে।

বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদ করার অপরাধে তাঁকে এই ছদ্দবেশ ধারন করে থাকতে হয় কয়েকটি বছর। জীবন ও যৌবনের সুন্দর সময় কাটে পালিয়ে ও আত্মগোপন করে। পরবর্তী সময়ে বঙ্গবন্ধু কণ্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণের পর আলোর পথ দেখেন মানিক। তখন তিনি আইনপেশায় নিয়োজিত হন। রাষ্ট্রপতি এডভোকেট মো: আব্দুল হামিদের ঐকান্তিক প্রচেষ্ঠায় ২০১৭ সালে এশিয়া মহাদেশের সবচেয়ে শক্তিশালী পেশাজীবী সংগঠন ঢাকা আইনজীবী সমিতির সভাপতি প্রার্থী হিসেবে আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা সাইদুর রহমান মানিককে দলের মনোনয়ন দেন।

নির্বাচনে বিপুল ভোটের ব্যবধানে তিনি সভাপতি নির্বাচিত হন। নির্বাচিত হওয়ার পর রাষ্ট্রপতিকে তাঁর জীবনের কৃতজ্ঞতা জানাতে তিনি ছুটে যান বঙ্গভবনে। সেখানে আইনজীবী সমিতির নব নির্বাচিত সভাপতি হিসেবে কৃতজ্ঞতা জানানোর সময় রাষ্ট্রপতি মো: আব্দুল হামিদ তাকে দোয়া করে বলেছিলেন, তুমি আরো অনেক বড় হও। সেই থেকে রাষ্ট্রপতির দোয়া নিয়ে বর্তমানে তিনি নেত্রকোণা- ৩ কেন্দুয়া-আটপাড়া নির্বাচনী এলাকার আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে এক বছরেই সকল মানুষের হৃদয়ে বিশাল জায়গা দখল করে নিয়েছেন।

কিশোরগঞ্জের স্মৃতি চারণ করে সাইদুর রহমান মানিক বলেন, আমার অভিভাবক আমার রাজনৈতিক পথ প্রদর্শক প্রবীন রাজনীতিবীদ রাষ্ট্রপতি এডভোকেট মো: আব্দুল হামিদের সম্মানে শ্রদ্ধা ও ভালবাসায় কিশোরগঞ্জে যে গণ সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়েছে তা থেকে শিক্ষা নেয়া যায় “যে দেশে যে, এলাকায় গুণের সমাদর আছে, সে দেশে আরো গুণী জন্মায়। আর যে দেশে গুণের সমাদর নেই, সে দেশে গুণি জন্মায় না।” মানিকের সঙ্গে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদকে শুভেচ্ছা ও অভিননদন জানান এডভোকেট শাহ আজিজুল হক।

প্রিন্স, ঢাকা