একটি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ রেখে যাওয়াই আমাদের দায়িত্ব: মোশাররফ

সরকারের বর্তমান মেয়াদে দেশ অভূতপূর্ব উন্নয়নের পথে এগিয়ে গেছে। মুক্তিযোদ্ধা ভাতা, বিধবা ভাতা, শিক্ষা ভাতাসহ বিভিন্ন প্রকার সামাজিক কর্মসূচিতে ৭০ লাখ লোককে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। অর্থনৈতিকভাবে দেশ সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাচ্ছে। মাথাপিছু আয় বেড়েছে। উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রাখতে হলে আগামীতেও বর্তমান সরকারকেই দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দিতে হবে। খবর- পিআইডি

শনিবার চট্টগ্রামের মীরসরাই উপজেলায় পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এসব কথা বলেন। বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কর্মসূচি তৃণমূল পর্যায়ে জনগণের কাছে তুলে ধরতে প্রচার অভিযানের অংশ হিসেবে এসব পথসভার আয়োজন করা হয়। চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ এ কর্মসূচির আয়োজন করে।

গণপূর্ত মন্ত্রী বলেন, এদেশের উন্নয়ন নিশ্চিত করতে আওয়ামী লীগের কোনো বিকল্প নেই। এ সরকারের আমলে একদিকে জাতীয় পর্যায়ে বৃহৎ বৃহৎ উন্নয়ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে; অপরদিকে তৃণমূলের অতিদরিদ্র মানুষসহ সকল মানুষের উন্নয়নেও কার্যকর কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হয়েছে। কিছুদিন পূর্বে ১০০ বছরের ডেল্টা উন্নয়ন কর্মসূচি একনেকে অনুমোদন করা হয়েছে। এ পরিকল্পনায় আগামী ১০০ বছরে দেশে কী কী অগ্রগতি সাধন করা হবে তা নির্ধারণ করা হয়েছে। এখনকার নেতৃবৃন্দ হয়তো ১০০ বছর জীবিত থাকবেন না, কিন্তু আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ রেখে যাওয়া আমাদের দায়িত্ব।

মন্ত্রী আরো বলেন, এই মীরসরাইয়ে দেশের বৃহত্তম অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা হয়েছে। এখানে বিশাল অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড চলবে। এ অর্থনৈতিক অঞ্চলে প্রায় ৫০ লাখ লোকের কর্মসংস্থান হবে। এখানে যে অর্থনৈতিক কর্মকান্ড চলবে তাকে ঘিরে এ এলাকার আর্থসামাজিক উন্নয়ন আরো ত্বরান্বিত হবে। মন্ত্রী বলেন, এদেশের জনগণ অতীতে এদেশে স্বাধীনতা বিরোধীদের সরকারে দেখেছে। দেখেছে তাদের লুটপাটের রাজত্ব। তাই পর পর দুই মেয়াদে জনগণ আওয়ামী লীগকে নির্বাচিত করেছে। আগামীতে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগকেই নির্বাচিত করবে।

এ-সময় রেলপথ মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় কমিটির সভাপতি এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরী, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ সালাম, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মো. জসিম উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক ইউনুস খান চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা নূরুল আনোয়ার, মীরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আতাউর রহমান, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির, সাংগঠনিক সম্পাদক এনায়েত হোসেন খান নয়নসহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রিন্স, ঢাকানিউজ২৪