ঢাকায় নদী-খাল রক্ষার কাজ দ্রুত শুরু হবে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

কেরানীগঞ্জ, ঢাকা প্রতিনিধি: ঢাকা বুড়িগঙ্গা ১৭টি নদী/খাল রক্ষায় ১০০০ কোটি টাকার কাজ শুরু হবে। বিদ্যুৎ ঘাটতির কারণে দেশে এখন আর লোডশেডিং হয় না বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু। তিনি বলেন, যা লোডশেডিং হয় তা হয় বিদ্যুতের কোনও সমস্যার কারণে। বাংলাদেশের কোথাও আর জেনারেটর চলে না কারণ বিদ্যুতের কোনও ঘাটতি নেই।

শনিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৬টায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের গুদারাঘাট এলাকায় আলম টাওয়ার মার্কেটের সামনে কেরানীগঞ্জের গার্মেন্টস ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠানের তিনি এসব কথা বলেন।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘শতকরা ৯০ ভাগ বিদ্যুৎ বাংলাদেশের ঘরে ঘরে পৌঁছে গেছে। বাকি বিদ্যুৎ আগামী কয়েকমাসের মধ্যে সব এলাকায় পৌঁছে যাবে। তিনি আরও বলেন, ‘দেশে গ্যাসের কিছু সমস্য রয়েছে। তবে এ সমস্যা বেশিদিন থাকবে না। নসরুল হামিদ বলেন, ‘দেশে পদ্মা সেতু হচ্ছে।

ছয়লেন, চারলেন রাস্তা হচ্ছে। বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে খালেদা জিয়া ও তারেক জিয়া এসব উন্নয়নের টাকা দিয়ে পকেট ভরতো। দেশের কোনও কাজ হতো না। সারা বিশ্ব এখন শেখ হাসিনাকে চিনে। বাংলাদেশকে চিনে। এই সরকার যদি আবার ক্ষমতায় না আসে তাহলে এদেশের সব উন্নয়ন বন্ধ হয়ে যাবে। ব্যবসায়ীদের বুড়িগঙ্গা নদীর ওয়াইজঘাট ও স্যামসন ঘাটের বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা আগে শুভাঢ্যা খাল পরিষ্কারর করুন, আমি ঘাট ফ্রি করে দেব।

কেরানীগঞ্জ গার্মেন্টস ব্যবসায়ী ও দোকান মালিক সমবায় সমিতি লিমিটেডের সভাপতি আলহাজ আব্দুল আজিজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, সমিতির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ স্বাধীন শেখ, আগানগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর শাহ খুশী, জিনজিরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী সাকুর হোসেন সাকুসহ অনেকে।

প্রিন্স, ঢাকা