সোনারগাঁওয়ে বেড়াতে এসে দুই বন্ধুর গলাকাটা ও রশিতে ঝুলানো লাশ

নিউজ ডেস্কঃ রায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে দুই যুবকের গলাকাটা ও রশিতে ঝুলানো লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এদের দুজনই বন্ধু এবং তারা নীলফামারী থেকে সোনারগাঁওয়ে বেড়াতে এসেছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ ।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সোনারগাঁওয়ের সোনাপুর কলাবাগান এলাকার একটি মেস থেকে দু’জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। ঘটনার পর থেকেই পলাতক রয়েছেন বাড়ির মালিক হাসিনা বেগম ও নিহতদের আত্মীয় বাদশা মিয়া।

নিহত দুজন হলেন- নীলফামারীর ডোমার জোড়াবাড়ির এরশাদুল ইসলামের ছেলে মিনারুল (২৭) ও একই থানার কামানিয়া গ্রামের দিলু মিয়ার ছেলে মজনু (৩০)। এরা দুজন বন্ধু বলে জানা গেছে। এদের মধ্যে মিনারুলের গলা কাটা ছিল এবং মজনুর লাশ রশিতে ঝুলানো ছিল। 

বুধবার রাতে দুই বন্ধু বেড়াতে আসেন সোনারগাঁওয়ের সোনাপুর কলাবাগান এলাকার হাসিনা বেগমের বাড়িতে। এ বাড়িতে ভাড়া থাকেন তাদের আত্মীয় ও বন্ধু বাদশা মিয়া। নীলফামারীর রোমানিয়ার গোপনাথ গ্রামে বাদশা মিয়ার বাড়ি।

সোনারগাঁও থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফরিদ হোসেন বলেন, ধারণা করা হচ্ছে বেড়াতে এসে রাতের কোন এক সময় দুজনের মধ্যে কোন কিছু নিয়ে কথা কাটাকাটি হয় এবং কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মিনারুলকে হত্যার পর অনুশোচনা থেকে নিজেই আত্মহত্যা করেন মজনু। তারপরও বিষয়টি খতিয়ে দেয়া হচ্ছে, ঘটনার পর বাড়ির মালিক হাসিনা বেগম ও বাদশা মিয়া পলাতক রয়েছেন।