নির্বাচন নিয়ে হামলার শঙ্কায় সংখ্যালঘুরা

সুমন দত্ত: সারাদেশে আসন্ন সংসদ নির্বাচন ঘিরে সংখ্যালঘু ্ও আদিবাসী সম্প্রদায়ের উদ্বেগ বেড়ে গেছে বলে জানিয়েছে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। রবিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত এ কথা বলেন। এ সময় তার সাথে ছিলেন সঙগঠনের অন্য নেতাকর্মীরা। 

রানা দাশগুপ্ত বলেন, আ্ওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকা সত্ত্ব্ওে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ্ওপর হামলা মামলা থেমে নেই। দেশের বিভিন্ন স্থানে সংখ্যালঘুদের ্ওপর হামলা চলছে। তবে এর মাত্রা কমে এসেছে বলে তিনি জানান। তিনি বলেন, ২০১৬ সালে যেখানে ১৪৭১টি সাম্প্রদায়িক হামলা হয়েছিল সেখানে ২০১৭ সালে ১০০৪টি হামলা হয়েছে। আর চলতি আগস্ট মাসে এই হামলা দাড়িয়েছে ৩৮০টি। 

কতিপয় রাজনৈতিক দলের নেতারা লন্ডনে শেখ হাসিনাকে জড়িয়ে সাম্প্রদায়িক উসকানি দিয়েছে। স্লোগান দিয়ে তারা বলে শেখ হাসিনার বাপের নাম, হরে কৃষ্ণ হরে রাম। এসব ঘটনার নিন্দা জানায়নি ওই রাজনৈতিক দল। এর আগে রাজনৈতিক কাম সাংবাদিক এক নেতা কোনো এক মামলায় হাজিরা দিতে গেলে তিনি আক্রান্ত হোন। তিনি হিন্দুদের দেখে নেবেন বলে হুমকি দেন। অথচ ওই হামলায় কোনো হিন্দু জড়িত ছিল না। 

এরপর তিনি বলেন, রাজধানী ঢাকার মুগদায় হাযদার আলী স্কুল এন্ড কলেজর বাংলার প্রভাষক প্রশান্ত বিশ্বাসের বিরুদ্ধে ইসলাম ধর্ম অবমাননার মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়। ্ওই শিক্ষক বলেছিলেন, প্রকৃতির সবকিছুতে কোনো না কোনো ছন্দ আছে। তেমনি পবিত্র ধর্মগ্রন্থ পাঠ্ওে নির্দিষ্ট সুর রয়েছে। তার এই কথা বিকৃত করে প্রচার করে তাকে চাকুরিচ্যূত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। সব কটি রাজনেতিক দলের সমর্থক শিক্ষকরা এই শিক্ষক নাজেহালের ঘটনায় জড়িত। 

আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদ শুক্রবার দুপুর ১ টায় মহাসমাবেশের ডাক দিয়েছে। সেখানে জাতির সামনে বক্তব্য রাখবেন ড. আনিসুজ্জামান। নির্বাচ ঘিরে সংখ্যালঘুদের ভাবনা্ওে করণীয় সম্পর্কে বলা হবে। 

ঢাকানিউজ২৪ডটকম