ওবায়দুল কাদেরের উপন্যাস অবলম্বনে গাঙচিলের মহরত

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিতব্য ‘গাঙচিল’ সিনেমার শুভ মহরত ছিলো তারকামেলায় প্রোজ্জল। খবর- পিআইডি

বুধবার রাজধানীর ঢাকা ক্লাবের স্যামসন এইচ চৌধুরী হলে এ অনুষ্ঠানে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সাথে উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, অভিনেতা তারিক আনাম খান, কলকাতার অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, এদেশের অভিনয়শিল্পী পূর্ণিমা ও ফেরদৌসসহ চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ববৃন্দ।

সাংবাদিকদের কাছে সিনেমাটির কাহিনীকার হিসেবে প্রতিক্রিয়া জানাবার সময় মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এই উপমহাদেশের রাজনীতিবিদরা সাধারণত উপন্যাস লেখেন না। সেই দুঃসাহসটাই আমি দেখিয়েছি। জীবন ঘনিষ্ঠ একটা উপন্যাস আমি লিখতে চেয়েছিলাম। এখানে উপক‚লের মানুষদের জীবনচিত্র ফুটিয়ে তুলতে চেয়েছি। জেল থেকে বের হয়ে কক্সবাজারে টানা সাত দিন অবস্থান করে আমি বইটা শেষ করেছি।’
‘বই মেলায় প্রকাশের পর বইটি বেস্ট সেলার হয়েছে, কিন্তু বইটি চলবে কিনা তা ভেবে শুরুতে লজ্জা পেতাম’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এটা নিয়ে আবার সিনেমা হবে আমি কল্পনায়ও ভাবিনি। আমি মনে করি এটা আমার জন্য একটা সৌভাগ্যের ব্যাপার।’

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘ওবায়দুল কাদের সাহেবের উপন্যাসটিতে বাংলাদেশের চেতনার কথা উঠে এসেছে, সাগরপাড়ের জনপদের কথা উঠে এসেছে। উপন্যাসটি নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূলের হাতে দেওয়া হয়েছে। উনি চমৎকার চিত্রনাট্যের মাধ্যমে সিনেমাটিকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করবেন বলে আমার বিশ্বাস। সিনেমাটি দর্শকনন্দিত হবে বলে আমার বিশ্বাস।’

‘বাংলাদেশকে বাংলাদেশের পথে রাখতে, নিজস্ব সংস্কৃতি চেতনার বিকাশে এ চলচ্চিত্র বড় ভূমিকা রাখবে’, বলেন ইনু।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ‘একজন রাজনীতিবিদের এ সৃষ্টিশীল কাজ জাতির সামনে একটি বড় উদাহরণ। শিল্প-সংস্কৃতির চর্চা সবসময়েই জীবনকে উন্নততর পথে এগিয়ে নিয়ে যায়।’

তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, ‘বর্তমানে সরকারের প্রতি আপনাদের ভালোবাসার কারণে আজ মহরতে এতজন মন্ত্রী এসেছেন। আমি সিনেমাটির সাফল্য কামনা করছি।’

অনুষ্ঠানে চলচ্চিত্রটির পরিচালক নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, অভিনেতা তারিক আনাম খান, কলকাতার অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, এদেশের অভিনয়শিল্পী পূর্ণিমা ও ফেরদৌস তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করেন।

পরিচালক নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল জানান, ‘নুজহাত ফিল্মস’ ও ‘ইচ্ছেমতো’র প্রযোজনায় আগামী মাস অক্টোবর থেকেই ‘গাঙচিল’র শুটিং শুরু হচ্ছে। এতে নাম ভূমিকায় পূর্ণিমা-ফেরদৌস ছাড়াও অভিনয় করছেন ঋতুপর্ণা।’

প্রিন্স, ঢাকানিউজ২৪